History and Importance of Krishna Janmashtami

Krishna Janmashtami: শ্রীকৃষ্ণ ও জন্মাষ্টমী, ভক্তের খুব কাছের

জ্যোতিষ শাস্ত্র রাশিফল

ভগবান শ্রীকৃষ্ণ (Krishna Janmashtami), ভক্তের খুব কাছের একজন। ভারতীয় পূরণে ও শাস্ত্রে তিনি অদ্বিতীয়। মনের মানুষ হয়ে তিনি আট থেকে আশির …

নিজস্ব সংবাদদাতা:
“যদা যদা হি ধর্মস্য
গ্লানির্ভবতি ভারত।
অভ্যুত্থানমধর্মস্য
তদাত্মানং সৃজাম্যহম্॥
পরিত্রাণায় সাধুনাং
বিনাশয় চ দুষ্কৃতাং।
ধর্মসংস্থাপনার্থায়
সম্ভবামি যুগে যুগে॥

ভগবান শ্রীকৃষ্ণ (Krishna Janmashtami), ভক্তের খুব কাছের একজন। ভারতীয় পূরণে ও শাস্ত্রে তিনি অদ্বিতীয়। মনের মানুষ হয়ে তিনি আট থেকে আশির হৃদয়ে আছেন। ধর্মীয় আবেগে, ভক্তির গভীরতায়, বন্ধুত্বের স্বকীয়তায়, লক্ষ্যের পূর্ণতায়, রাজনীতির সূক্ষতায়, প্রেমের মাদকতায়, দর্শনের ব্যাপকতায়, জীবন প্রবাহের পরিপূর্ণতায় তিনি একেবারেই আলাদা। আমরা বিশ্বাস করি – “বসুদেব কুটুম্বকম” “The world is one family”– এই পৃথিবীতে সবাই একই পরিবারের সদস্য।

Srikrishna with his mother
Srikrishna with his mother

কৃষ্ণের প্রাচীন উল্লেখ আছে বৈদিক সাহিত্যে। ঋগ্বেদে একাধিকবার কৃষ্ণের উল্লেখ আছে। সেখানে তিনি ইন্দ্রবিরোধী একজন অনার্য যোদ্ধা। কৌষিতকীব্রাহ্মণে কৃষ্ণকে দেবকীপুত্র বলা হয়। তাঁর গুরু ছিলেন ঘোর-আঙ্গিরস। মহাভারত, বিভিন্ন পুরাণ, শ্রীমদ্ভাগবত এবং বৈষ্ণবকাব্যে যে কৃষ্ণের কাহিনী বর্ণিত হয়েছে তাঁর আবির্ভাব দ্বাপর যুগে। প্রচলিত ঐতিহ্য অনুসারে মাতুল কংসের কারাগারে ভাদ্রমাসের অষ্টমী তিথিতে কৃষ্ণের জন্ম। তাঁর জন্মসূত্রে এ দিনটি প্রতিবছর জন্মাষ্টমী নামে পালিত হয়।

Srikrishna with his father
Srikrishna with his father

বিষ্ণুর ৮ম অবতার শ্রীকৃষ্ণ। সংস্কৃত কৃষ্ণ শব্দটির অর্থ কালো, ঘন বা ঘন-নীল। মহাভারতের উদ্যোগপর্বে বলা হয়েছে কৃষ্ণ শব্দটি কৃষ ও ণ এই দুটি মূল থেকে উৎপন্ন। কৃষ শব্দের অর্থ কর্ষণ করা। এই শব্দটি ভূ বা পৃথিবী শব্দটির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। ণ শব্দটির অর্থ নিবৃত্তি। কৃষ্ণ শব্দের অর্থ সকল বিষয়ের আকর্ষণীয় ব্যক্তি। বিষ্ণু সহস্রনামের ৫৭তম নামটি হল কৃষ্ণ। যার অর্থ, আদি শঙ্করের মতে আনন্দের অস্তিত্ব। সর্বাধিক প্রচলিত নামদুটি হল গোবিন্দ ও গোপাল। পার্থসারথি হয়েই তিনি বেশি গ্রহণযোগ্য সকলের কাছে।

Srikrishna as Partha Sarathi
Srikrishna as Partha Sarathi

জন্মাষ্টমী বা কৃষ্ণজন্মাষ্টমী একটি প্রসিদ্ধ হিন্দু উৎসব। এটি বিষ্ণুর অবতার কৃষ্ণের জন্মদিন হিসেবে সাড়ম্বরে পালিত হয়। এর অপর নাম কৃষ্ণাষ্টমী, গোকুলাষ্টমী, অষ্টমী রোহিণী, শ্রীকৃষ্ণজয়ন্তী প্রভৃতি। আসলে হিন্দু পঞ্জিকা মতে, সৌর ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে যখন রোহিণী নক্ষত্রের প্রাধান্য হয়, তখন জন্মাষ্টমী পালিত হয়। কৃষ্ণ দেবকী এবং বাসুদেবের অষ্টম সন্তান ছিলেেন। পুরানো পুঁথির বর্ণনা এবং জ্যোতিষশাস্ত্রের গণনা অনুসারে কৃষ্ণের জন্মর তারিখ, খ্রীষ্টপূর্ব ৩২২৮ সালের ১৮ই জুলাই। তাঁর মৃত্যুর দিন খ্রীষ্টপূর্ব ৩১০২ সালের ১৮ই ফেব্রুয়ারি। কৃষ্ণ মথুরার যাদববংশের বৃষ্ণি গোত্রের মানুষ ছিলেন।

Srikrishna Death Scene
Srikrishna Death Scene

ভগবান শ্রীকৃষ্ণ ছিলেন দেবকি ও বাসুদেবের সন্তান। শ্রীকৃষ্ণের জন্মের সময় সর্বত্র অরাজকতা, অত্যাচার চলছিল। সেই সময় অশুভ শক্তির বিস্তার ঘটে। শ্রীকৃষ্ণের মামা কংস ছিলেন তাঁর জীবনের একমাত্র শত্রু। মথুরাতে শ্রীকৃষ্ণের জন্মের রাতে তাঁর বাবা বাসুদেব তাঁকে যমুনা নদী পার করে গোকুলে পালক মাতা পিতা যশোদা ও নন্দের কাছে রেখে আসেন। এরপর শুরু হয় শ্রীকৃষ্ণের লীলা। জগতের সকল কালিমা ও অন্ধকারকে সরিয়ে দিয়ে শান্তির বার্তা ঘোষণা করেন।

[ আরো পড়ুন ] গুরু পূর্ণিমার মাহাত্ম্য, শান্তি ও ধনদৌলতের জন্য করণীয়

আজ ১১ই অগস্ট মঙ্গলবার, সকাল ৯টা ৬ মিনিট থেকে শুরু করে ১২ অগস্ট সকাল ১১টা ১৬ মিনিট পর্যন্ত জন্মাষ্টমী তিথি থাকবে। অন্য দিকে ১৩ই অগস্ট ভোর ৩টা ২৭ মিনিট থেকে শুরু করে ১৪ই অগস্ট সকাল ৫টা ২২ মিনিট পর্যন্ত রোহিণী নক্ষত্র থাকবে। তাই জন্মাষ্টমীর জন্য ১২ই অগস্টের মুহূর্তকেই শুভ বলা হচ্ছে। জন্মাষ্টমী পুজোর জন্য ৪৩ মিনিটের সময় পাওয়া যাবে। বিশেষজ্ঞ পণ্ডিতদের মতে, রাত ১২টা ০৫ মিনিট থেকে শুরু করে ১২টা ৪৭ মিনিট পর্যন্ত কৃষ্ণ পূজা করা যেতে পারে।

[ আরো পড়ুন ] বিপত্তারিণী পুজো – দেবী সঙ্কটনাশিনীর রূপ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *