22 Thousands Crore Taka Decreased in Loan Defaulters Case in Bangladesh

Loan Defaulters: তিন মাসে ২২ হাজার কোটি টাকা ঋণ কমলো

বাংলাদেশ

বিশ্ব ব্যাংকের হিসাবে ঋণ খেলাপিতে (Loan Defaulters) দক্ষিণ এশিয়ায় শীর্ষে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ব্যাংক যে নীতিমালা জারি করেছিল, বছরের শেষ …

বিশ্ব ব্যাংকের হিসাবে ঋণ খেলাপিতে (Loan Defaulters) দক্ষিণ এশিয়ায় শীর্ষে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ব্যাংক যে নীতিমালা জারি করেছিল, বছরের শেষ সময়ে সেটির সদ্ব্যবহার ভালোই হয়েছে। এতে টানা বাড়তে থাকা খেলাপি ঋণেও লাগাম দেওয়া সম্ভব হয়েছে। পুনঃতফসিলে তিন মাসে কমেছে ২২ হাজার কোটি টাকা। এক বছরে খেলাপি বেড়েছে ৪২০ কোটি টাকা। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে খেলাপি ঋণের হার সবচেয়ে বেশি, ১১ দশমিক ৪ শতাংশ। এরপর দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে ভুটান ও আফগানিস্তান, যাদের খেলাপি ঋণের হার যথাক্রমে ১০ দশমিক ৯ ও ১০ দশমিক ৮ শতাংশ।

Bangladesh Bank
Bangladesh Bank

২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে খেলাপি ঋণ দাঁড়িয়েছে ৯৪ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা, যা ওই সময় পর্যন্ত বিতরণ করা ঋণের ৯.৩২ শতাংশ। তবে অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর এই তিন মাসে ২২ হাজার কোটি টাকা খেলাপি ঋণ কমিয়ে ফেলেছে ব্যাংকগুলো। সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর ২০১৯ সালের ১০ জানুয়ারি অর্থমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছিলেন ‘খেলাপি ঋণ এক টাকাও বাড়বে না’। কিন্তু জানুয়ারি-মার্চ এ তিন মাসে খেলাপি ঋণ ১৬ হাজার ৯৬২ কোটি টাকা বেড়ে প্রথমবারের মতো এক লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়েছিল। পরবর্তী তিন মাস অর্থাৎ এপ্রিল-জুন পর্যন্ত এক হাজার ৫৫২ কোটি টাকা এবং সর্বশেষ জুলাই-সেপ্টেম্বর পর্যন্ত খেলাপি ঋণ বেড়েছে তিন হাজার ৮৬৩ কোটি টাকা।

বিদেশি ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণ ২ হাজার ১০৩ কোটি টাকা। সরকারি মালিকানাধীন বিশেষায়িত তিন ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ৪ হাজার ৫৯ কোটি টাকা; আগের বছর যা ছিল ৪ হাজার ৭৮৭ কোটি টাকা। গত বছরের শুরুতে নতুন সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে খেলাপি ঋণ এক টাকাও বাড়বে না বলে ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ জন্য প্রথমে আন্তর্জাতিক মানের খেলাপি নীতিমালায় শিথিলতা আনা হয়। আগে ৩ মাস অনাদায়ী থাকলেই তা খেলাপি হিসেবে শ্রেণিকরণ করতে হতো। এটি সংশোধন করে ৬ মাস এবং সর্বোচ্চ ১২ মাস করা হয়। অন্যদিকে খেলাপিদের গণছাড় দিতে বিশেষ পুনঃতফসিল নীতিমালা জারি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *