Bangladesh high court says juvenile cases must be within juvenile court only

বাংলাদেশে ভ্রাম্যমাণ আদালতে শিশুর সাজা অবৈধ

বাংলাদেশ

বদলে যাচ্ছে আইনের ধারা। ভ্রাম্যমাণ আদালতে শিশুদের সাজা (Juvenile cases) দেওয়া অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে রায় প্রকাশ করেছেন মহামান্য হাইকোর্ট।

নিজস্ব সংবাদদাতা: বাংলাদেশ সময়ের সাথে এগিয়ে চলেছে। বদলে যাচ্ছে আইনের ধারা। ভ্রাম্যমাণ আদালতে শিশুদের সাজা (Juvenile cases) দেওয়া অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে রায় প্রকাশ করেছেন মহামান্য হাইকোর্ট। আজ বৃহস্পতিবার ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম ও অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আজকের রায়ে ১২১ শিশুকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের দেওয়া সাজাও বাতিল করা হয়েছে।

[ আরো পড়ুন ] বাংলাদেশে তিন পার্বত্য জেলায় রেল সংযোগ

রায় প্রদানকারী বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিল স্বাক্ষরের পর সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে ৩১ পৃষ্ঠার এই গুরুত্বপূর্ণ রায় প্রকাশ করা হয়। বাংলাদেশে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হলো।

Bangladesh high court says juvenile cases must be within juvenile court only
Bangladesh high court says juvenile cases must be within juvenile court only

এই উর্বর রায়ে বলা হয়েছে, ” শিশুর বিরুদ্ধে সকল অভিযোগের বিচার শুধু শিশু আদালতেই করতে হবে। ভ্রাম্যমাণ আদালত ও অধস্তন আদালতের কোনো বিচারক যদি শিশুদের বিচার করেন সেটি হবে বে-আইনি। কোনো অপরাধ সংঘটনে প্রাপ্তবয়স্ক ও শিশু একত্রে জড়িত থাকলেও শিশুর বিচার শুধু শিশু আদালতকরবে। শিশুদের মোবাইল কোর্ট (ভ্রাম্যমাণ আদালত) কোনো দণ্ড দিতে পারবে না। কারণ, মোবাইল কোর্ট কোনো শিশুকে দণ্ড দিলে সেই দণ্ড সংবিধানের ৩০ এবং ৩৫ অনুচ্ছেদে মৌলিক ও মানবাধিকার লঙ্ঘিত হবে। “

[ আরো পড়ুন ] পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ৮৫০০ হাজার কোটি টাকা

গত ১১ই মার্চ প্রকাশ্য আদালতে এই রায় ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। এবার সেই রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি প্রকাশিত হলো। এরইমধ্যে হাইকোর্টের এই রায় স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত। এখন পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর এই রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ নিয়মিত লিভ টু আপিল আবেদন দাখিল করবে।

হাইকোর্ট ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শ্যামলী ও ফার্মগেট এলাকায় সাজা দেওয়া ২৩টি শিশুর উদাহরণ তুলে ধরেন। আদালত জানায় , মাত্র ৩২ মিনিটে দুটি ঘটনাস্থলে একই ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২৩ শিশুর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ ও তাদের দণ্ড দেওয়াসহ বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করা অসম্ভব। হটকারী এই বিচার একজন মানুষের পক্ষে অসম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *