Bangladesh Sugar Crop Research Institute Bill in Parliament

Sugar Crop Research: সংসদে মিষ্টি ফসলের গবেষণা বিল

বাংলাদেশ

১৯৯৬ সালের ‘বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউট আইন’ (Sugar Crop Research) এর বদলে নতুন আইন করতে সংসদে বিল উঠেছে।

চিনি উৎপাদন হয় এমন ফসলের গবেষণা অব্যাহত রাখার প্রয়োজনে ১৯৯৬ সালের ‘বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউট আইন’ এর বদলে নতুন আইন করতে সংসদে বিল উঠেছে। প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে ইক্ষ্মু গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিবর্তে দেশের সকল মিষ্টি ফসলের গবেষণা (Sugar Crop Research) একই ছাতার নিচে আনতে বাংলাদেশ সুপারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট আইন, ২০১৯ (বিএসআরআই) বিল উত্থাপিত হয়েছে সংসদে। বিলটি ৩০ দিনের মধ্যে পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়। ইনস্টিটিউট চিনি, গুঁড়, সিরাপের পাশাপাশি মধু উৎপাদনের লক্ষ্যেও প্রযুক্তি উদ্ভাবন করবে। আগের আইনে ‘সুগারক্রপের’ সংজ্ঞা নির্ধারিত ছিল না।

জানানো হয়েছে, ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউট জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সৃষ্ট ঝুঁকি মোকাবিলায় সুগারক্রপ গবেষণা কার্যক্রম গ্রহণ করবে সরকারের অনুদোন নিয়ে স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে, কৃষিবিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ে সাফল্য ও কৃতিত্বের সাতে ডিগ্রি অর্জনকারীদের ফোলোশিপ দিতে পারবে এ ইনস্টিটিউট। বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্পর্কে বলা হয়েছে, “সময়ের পরিক্রমায় ইনস্টিটিউটের কাজের পরিধি বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই প্রতিষ্ঠানটির শিরোনাম পরিবর্তনসহ বিদ্যমান আইনটি অধিকতর সংশোধন ও হালনাগাদ করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে।” মিষ্টি জাতীয় ফসলের গবেষণা অব্যাহত রাখা প্রয়োজন বিবেচনায় ১৯৯৬ সালে প্রণয়ন করা বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউট আইন ও ২০০২ সালে সংশোধিত আইন দু’টি রদ করে আরও সংশোধন ও পরিমার্জন করে বাংলাদেশ সুপারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট আইন, ২০১৯ বিলটি প্রণয়ন করা হয়েছে।

বিলে নতুন আইন হওয়ার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউটের সকল সম্পদ, অধিকর, ক্ষমতা, কর্তৃত্ব, চুক্তিসমূহ, ঋণ, দায় ও দায়িত্ব, এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বা এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষে হতে দায়ের করা সব মামলার আইনগত কার্যধারা বহাল থাকবে।বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করে বাংলাদেশ সুপারক্রপ গবেষণা ইনস্টিটিউট নামকরণ করা হয়। তবে এ বিষয়ক আইনে কোনো পরিবর্তন বা সংশোধনী আসেনি। তাই প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তনসহ বিদ্যমান আইনটি সংশোধন ও হালনাগাদ করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *