Bangladesh surpasses China in COVID 19 positive numbers

বাংলাদেশ করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়াল

বাংলাদেশ

এবার আক্রান্তের সংখ্যায় ড্রাগন দেশকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ (Bangladesh surpasses China)। চীনে এখন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮৪, ২২৮ জন।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলাদেশ অনুজীবীর আতংকে জেরবার। দ্রুততার সাথে বেড়েই সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত বছর ডিসেম্বরে করোনাভাইরাস মহামারী শুরু হয়েছিল চীন থেকে। সেই চীন ১৮টি দেশের পেছনে পড়ে গেল। এবার আক্রান্তের সংখ্যায় ড্রাগন দেশকে পেছনে ফেলল বাংলাদেশ (Bangladesh surpasses China)। চীনে এখন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮৪, ৫২৩ জন।

Bangladesh Corona Numbers Update
Bangladesh Corona Numbers Update

বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ আক্রান্ত ৩৪৭১ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে৷। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৪, ৫২৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে ৪৪ জন মারা গেছেন ৷ মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০৯৫ জন। ৷ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৭৮ জন। এখন পর্যন্ত কোভিডমুক্ত হয়েছেন ১৭,৮২৭ জন।

বাংলাদেশে ত্রাণ সহায়তা পেয়েছে দেড় কোটি পরিবার  – আরও জানতে ক্লিক করুন …

বাংলাদশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪,০৩৫টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে পূর্বের নমুনাসহ ১৬,৬৩৮টি নমুনা পরীক্ষা করে করে ২,৮৫৬ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট আক্রান্ত ৮৪,৩৭৯ জন। শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ১৭ শতাংশ। তিনি আরও বলেন , গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৪৪ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে পুরুষ ৩৩ জন ও নারী ১১ জন।

বাংলাদেশে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ – আরও জানতে ক্লিক করুন …

বাংলাদেশে সুস্থতার হার ২১ দশমিক ১৩ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ।বয়স বিশ্লেষণে ২১-৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে ৬ জন, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৭১-৮০ বছরের মধ্যে ৭ জন, ৮১-৯০ বছরের মধ্যে ৩ জন মারা গেছেন।

বাংলাদেশে আগামী শিক্ষাবর্ষের জন্য ৩৫ কোটি বই – আরও জানতে ক্লিক করুন …

বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, ঢাকা বিভাগে ১৯ জন, চট্টগ্রামে ১৩ জন, সিলেটে ২ জন, রাজশাহীতে ৪ জন, বরিশালে ৪ জন, রংপুরে একজন ও খুলনায় একজন মারা গেছেন। এর মধ্যে হাসপাতালে২৭ ও বাসায় ১৪ জন মারা গেছেন। তবে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় এসেছেন ৩ জন।

সাংবাদিক, প্রশাসন অন্যান্য সকল পেশার মানুষ এবং সাধারণ জনগণ এই সংখ্যা এবং পরিসংখ্যানে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। দেশে মৃত্যুর তালিকাও দীর্ঘ হচ্ছে। স্বাস্থ্যসেবা, আইনশৃঙ্খলা এবং অন্যান্য সেবাদানকারীগণ তাদের সর্বোচ্চ সেবা দিয়ে কাজ করলেও বিপদ কাটছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *