Bengal CM Mamata Banerjee announces 10 days lockdown in West Bengal on August 2020

অগস্টে ১০ দিন লকডাউন ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের খবর

গ্রামে-গঞ্জেও প্রবেশ করেছে এই মারণ ভাইরাস। সেজন্যই, সময় থাকতে বড়ো সিদ্ধান্ত (Lockdown in West Bengal) নিলেন মুখমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলকাতা: বাংলায় লকডাউন -এর মেয়াদ আরও ১৫ দিন বাড়লো। আর পরিবর্তন হলো কিছু তারিখের, সৌজন্যে স্বাধীনতা দিবস, রাখি উৎসব ও ঈদ। পশ্চিমবঙ্গে কোবিদ আক্রান্তের সংখ্যা ৭০০০০ ছুঁই ছুঁই। এমতাবস্থায় এক প্রকার অঘোষিত গোষ্ঠী সংক্রমণ নিশ্চিত। অপরদিকে, গ্রামে-গঞ্জেও প্রবেশ করেছে এই মারণ ভাইরাস। সেজন্যই, সময় থাকতে বড়ো সিদ্ধান্ত (Lockdown in West Bengal) নিলেন মুখমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

আপাতত, ৩১ অগস্ট পর্যন্ত রাজ্যে লকডাউন বাড়ল। কিন্তু, প্রতি সপ্তাহে সম্পূর্ণ লকডাউন দু’দিন করে থাকবেই । বন্ধ থাকবে স্কুল-কলেজ, অফিস -আদালত, জটলা ও জমায়েত। আজ মঙ্গলবার, দুপুরে, নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করে এ কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বিবৃতি দিয়ে বলেন, “প্রতি সপ্তাহে শনি-রবিবার করে সম্পূর্ণ লকডাউন করার চেষ্টা চলছে। চলতি সপ্তাহে বুধবার লকডাউন থাকছে। আর ১৫ অগস্ট শনিবার পড়ায়, তার পরের দিন রবিবার লকডাউন থাকছে। এ ছাড়া শনি এবং রবিবারই লকডাউন থাকবে। ৩১ অগস্ট পর্যন্ত এই নিয়মই চলবে।”

COVID-19 update of India, West Bengal and World
COVID-19 update of India, West Bengal and World

মমতা বন্দোপাধ্যায় আরও জানান, আগামী বুধবার এবং রবিবার সকাল ৬টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত সম্পূর্ণ লকডাউন যেমন ছিল তেমনই থাকবে। শনিবার ইদ, সোমবার রাখি। তাই রবিবার লকডাউন হবে। ৮ এবং ৯ তারিখ ১৬, ১৭, ২২, ২৩, ২৯, ৩০ অগস্ট সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে। এই সময় যে ভাবে নিয়ম মানা হচ্ছিল, তেমনই মানতে হবে।

[ আরো পড়ুন ] কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ বদল

নিয়মের বেড়াজালে জনজীবন, নিস্তার নেই। তবে এই বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতিতে আছে এক সুখবর। এই প্রথম মৃতের সংখ্যার থেকে সুস্থতার হার বেশি। কলকাতায় কেন্দ্রীয় সরকারি উদ্যোগে তৈরী হচ্ছে এক বিশ্ব মানের করোনা পরীক্ষার ল্যাব। আবার পশ্চিমবঙ্গ সরকার জানিয়েছে বিশেষ মেশিন, যার মাধ্যমে ১ দিনে লক্ষাধিক পরীক্ষা করা সম্ভব হবে।

[ আরো পড়ুন ] কলকাতা, মুম্বই ও নয়ডায় বিশ্বমানের কোভিড পরীক্ষা কেন্দ্র

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *