3 Terrorists of JeM in J&K Arrested By Jammu Police

JeM in J&K: ৩ জইশ জঙ্গি ও একে৪৭-সহ ট্রাক আটক

কলকাতা

এক বড় মাপের সন্ত্রাসবাদী হামলা আটকে দিল জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ (JeM in J&K)। অমৃতসর থেকে থেকে আটক হল ট্রাক বোঝাই আগ্নেয়াস্ত্রা ও গোলাগুলি।

এক বড় মাপের সন্ত্রাসবাদী হামলা আটকে দিল জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ (JeM in J&K)। অমৃতসর থেকে থেকে আটক হল ট্রাক বোঝাই আগ্নেয়াস্ত্রা ও গোলাগুলি। কাশ্মীরগামী এই ট্রাকটি আটক করা হয় লখনপুর শহরের কাছে। অমৃতসর থেকে কাশ্মীর আসছিল ট্রাকটি। ট্রাকের ভিতর থেকে ৬টি AK-47 রাইফেল উদ্ধার হয়েছে এবং তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। খোঁজ চালানো হচ্ছে কাদের কাছে এতগুলি এ কে ৪৭ রাইফেল পৌঁছে দেওয়া হচ্ছিল এবং কারাই বা এর বরাত পেয়েছিল। ট্রাকে অবশ্য জম্মু-কাশ্মীরের নম্বর প্লেট ছিল এবং গাড়ির রেজিস্ট্রেশন রয়েছে সুহিল লাটুর নামে। গাড়ির চালকের আসনে ছিল পুলওয়ামার বাসিন্দা জাভিদ দাড় নামে এক ব্যক্তি।

চালক-সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সূত্রের খবর পুলিসের প্রাথমিক অনুমান, ধৃত ৩ জনের সঙ্গে লিঙ্ক রয়েছে জইশ জঙ্গি সংগঠনের। ওই ট্রাক থেকে একে৪৭ বন্দুক উদ্ধার করা গেছে। সীমান্তে বড়সড় নাশকতার ছকের আশঙ্কা করে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিস। উল্লেখ্য, গতকালই নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে মারা যায় লস্কর জঙ্গি আসিফ মকবুল বাট। দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপরে তাকে কোণঠাসা করে দেশের আধাসেনা। তার পরেই শুরু হয় এলোপাতাড়ি গুলির লড়াই। তাদের ছোড়া গ্রেনেডে আহত হয়েছেন ভারতীয় ২ জওয়ান।

সোপরের বিভিন্ন এলাকায় ত্রাসের সৃষ্টি করেছিল আসিফ মকবুল বাট। সম্প্রতি সোপরের এক ফল ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা চালায় আসিফ ও তার দলবল। গত শনিবার উত্তর কাশ্মীরের ডাঙ্গেপুরায় হামিদুল্লা নামে ওই ব্যবসায়ীর বাড়িতে ঢুকে পড়ে জঙ্গিরা। তারা হামিদুল্লার ছেলে মহম্মদ ইরশাদকে গুলি করে। তারপর তার আড়াই বছরের মেয়ে আসমা জানকেও গুলি করে। বাইরে থাকার জন্য প্রাণে বেঁচে যান হামিদুল্লাহ। তার পর থেকেই তাকে খুঁজছিল নিরাপত্তা বাহিনী। বুধবার তার ডেরা খুঁজে বের করে আধাসেনা। আজকের এই সাফল্য আগামীতে জঙ্গি যোগের আরও তথ্য জানতে সাহায্য করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *