According to RBI Bank Frauds in India Increased 74% This Year

Bank Frauds in India: একবছরে ৭৪ শতাংশ বেড়েছে

কলকাতা

২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে ব্যাঙ্ক জালিয়াতির (Bank Frauds in India) হার ৭৪ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৭১,৫৪৩ কোটি টাকা, ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে এই পরিমাণ ছিল ৪১,১৬৭ কোটি টাকা।

নোট বদল ও কালো টাকা নিয়ে বাজার গরম হলেও আসল কাজ তেমন কিছু হয় নি। ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে ব্যাঙ্ক জালিয়াতির (Bank Frauds in India) হার ৭৪ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৭১,৫৪৩ কোটি টাকা, ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে এই পরিমাণ ছিল ৪১,১৬৭ কোটি টাকা। আজ বৃহস্পতিবার, বার্ষিক রিপোর্ট প্রকাশ করে জানাল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। দেশের দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্কের রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, জালিয়াতির ঘটনা এবং ব্যাঙ্কের তরফে তা চিহ্নিত করার মধ্যে ২২ মাসের ব্যবধান আছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, “ব্যাঙ্কের মধ্যে, বাজারে সবচেয়ে বেশী ঋণদাতা হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে রাষ্ট্রয়াত্ত্ব ব্যাঙ্কগুলি, ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে তারাই সবচেয়ে বেশী পরিমাণে ব্যাঙ্ক জালিয়াতির জন্য দায়ী। এরপরেই রয়েছে বেসরকারি এবং বিদেশী ব্যাঙ্কগুলি”।

According to RBI Bank Frauds in India Increased 74% This Year
According to RBI Bank Frauds in India Increased 74% This Year

গত বছর অর্থাৎ ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে যেখানে ব্যাংক জালিয়াতির মামলা সামনে এসেছিল ৫ হাজার ৯০০ টি, সেখানে এবছর অর্থাৎ ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে ব্যাংক জালিয়াতির খবর সামনে এসেছে ৬ হাজার ৮০০টি। আরবিআই সূত্রের খবর, জালিয়াতির ঘটনা ঘটার পর তা প্রকাশ্যে আসতে গড়ে ২২ মাস সময় লেগেছে গত কয়েক বছরে। বড় জালিয়াতি অর্থাৎ ১০০ কোটির বেশি জালিয়াতির ক্ষেত্রে এই সময়টা আরও বেশি। ১০০ কোটির বেশি জালিয়াতির মামলা ধরতে ব্যাংক কর্তাদের সময় লাগছে গড়ে ৫৫ মাস। ব্যাংক কর্তাদের এই গড়িমসির জন্যই হয়তো অপরাধীদের পালিয়ে যেতে সুবিধা হচ্ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। মোট জালিয়াতির পরিসংখ্যানের মধ্যে ০.৩ শতাংশ রয়েছে কার্ড এবং ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং জালিয়াতি।

২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে ব্যাঙ্ক জালিয়াতির মধ্যে সবচেয়ে বেশী পরিমাণে রয়েছে ঋণ সংক্রান্ত জালিয়াতি, তবে গত আর্থিক বছরের তুলনায়, চলতি অর্থবর্ষে কমেছে ব্যালেন্স-শিট সংক্রান্ত জালিয়াতির পরিমাণ। জালিয়াতির শিকার বেশি হচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলিই। ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাংকগুলি থেকে জালিয়াতি হয়েছে প্রায় ৬৪ হাজার ৫০৯ কোটি টাকার। আগের বছর এই সংখ্যাটি ছিল ৩৮ হাজার ২৬০ কোটি। বেসরকারি ব্যাংকগুলি জালিয়াতির শিকার হয়েছে মোট ৫ হাজার ৫১৫ কোটি টাকার। জালিয়াতির শিকার হয়েছে খোদ রিজার্ভ ব্যাংকও। রিজার্ভ ব্যাংকেই জালিয়াতির ৭২ টি মামলা প্রকাশ্যে এসেছে। আগামীতে নিশ্চই সতর্ক হবে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *