Asaduddin Owaisi's Party AIMIM in WB Assembly Election

AIMIM in WB: পশ্চিমবঙ্গে সব আসনে প্রার্থী দেবে ওয়েইসির দল

কলকাতা

পশ্চিমবঙ্গের সবক’টি আসনেই তারা প্রার্থী দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে বলে কোনওরকম রাখঢাক না করেই জানিয়ে দিল আসাদুদ্দিন ওয়াইসির দল (AIMIM in WB) |

বিজেপি আছেই, তবুও তার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এলো আর এক দল। একটু সমস্যায় তৃণমূল কংগ্রেস। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের সবক’টি আসনেই তারা প্রার্থী দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে বলে কোনওরকম রাখঢাক না করেই জানিয়ে দিল আসাদুদ্দিন ওয়াইসির দল মজলিস-ই-মুত্তেহাদিন মুসলিমিন (AIMIM) (AIMIM in WB)। অসীম ওয়াকার জানান, “পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি গ্রামেই আমাদের অস্তিত্ব আছে। আমরা ২০২১ সালের পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব। এই প্রথমবার আমরা পশ্চিমবঙ্গে কোনও নির্বাচনে লড়ব, আর আমাদের ভাবনা হল প্রতিটি আসনেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা।”

সামনের ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যের ২৯৪টি আসনেই প্রার্থী দেবে মিম। তৃণমূল কংগ্রেসকে কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে তিনি জানান, ‘পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি গ্রামে আমাদের উপস্থিতি রয়েছে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে প্রথমবারের মতো সব আসনেই আমরা প্রার্থী দেব।’ কিছুদিন হলো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়েইসির মধ্যে বেনজির বাদনুবাদ চলছে। বিহারের কিষাণগঞ্জ আসনে বিধানসভা উপনির্বাচনে জয়ী হয়েছে মিম। বাংলা লাগোয়া কিষাণগঞ্জ আসনে জয়ের পরে এখন তাদের লক্ষ্য গোটা পশ্চিমবঙ্গ।

রাজ্যের ২৯৪ আসনে এবার তারা প্রার্থী দিলে মুসলমান ভোট ভাগ হয়ে যেতে পারে, তাতে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের যতটা ক্ষতি, বিজেপির ঠিক ততটাই লাভ। ওয়েইসি বলেন, ‘বাংলায় মুসলমানরা সুরক্ষিত নয়। দীর্ঘদিন ধরে তাদের ঠকিয়ে আসছে তৃণমূল। বাংলায় বিজেপি কী করে ৪২টির মধ্যে ১৮টি লোকসভা আসন পেল। সেই জবাব দিন মুখ্যমন্ত্রী।’ ওয়েইসির বিরুদ্ধে তোপ দেগে মমতা বলেন, “রাজনীতি করতে গিয়ে দেখেছি হিন্দুদের মধ্যে উগ্রতা রয়েছে। তবে এখন সংখ্যালঘুদের মধ্যেও উগ্রপন্থার বিষ ঢোকানোর চেষ্টা করছে অনেকে। এরা বিজেপির থেকে টাকা নিয়ে এরাজ্যের অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে। হায়দরাবাদ থেকে এরাজ্যে এসে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।” ফলে নির্বাচনের কাটাকুটি খেলা জমে উঠলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *