CBI Arrests IPS Officer SMH Mirza in Narada Sting Operation Case

SMH Mirza: নারদ-কাণ্ডে গ্রেফতার হলেন IPS মির্জা

কলকাতা

বর্ধমানের পুলিশ সুপার থাকাকালীন মির্জার (SMH Mirza) বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে রাজ্যে শাসকদলের নেতাদের হয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ।

খেলা শুরু হল পূজোর আগেই। নারদকাণ্ডে প্রথম গ্রেফতারি সিবিআই এর এক নামি আইপিএস অফিসার। সৈয়দ মহম্মদ হোসেন মির্জাকে (SMH Mirza) আজ বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করল সিবিআই। আসলে বর্ধমানের পুলিশ সুপার থাকাকালীন মির্জার বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে রাজ্যে শাসকদলের নেতাদের হয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ। গ্রেফতারির পর মির্জার মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদে বয়ানে অসংগতি মেলায় গ্রেফতার করা হয়েছে প্রাক্তন আইপিএস অফিসারকে। জানা যাচ্ছে, এস এম এইচ মির্জাকে নগর দায়রা আদালতে আনা হচ্ছে। আর সেখানেই তাঁকে হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানাবে সিবিআই।

নারদ স্টিং ফুটেজে টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল মির্জাকে। কেন তিনি টাকা নিয়েছিলেন, সে বিষয়ে একাধিক বার জেরা করা হয়। নারদ স্টিং অপারেশনের ভিডিয়ো ফুটেজে এসএমএইচ মির্জাকে টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল। সেই সময় তিনি বর্ধমানের পুলিশ সুপার পদে ছিলেন। কেন তিনি ওই টাকা নিয়েছিলেন, কারও নির্দেশে টাকা নিয়েছিলেন কি না, সে বিষয়ে তাঁকে আগেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। পরে তাঁর বয়ান রেকর্ডের পাশাপাশি কণ্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ২০১৬ সালে সেই স্টিং অপারেশনের ভিডিয়ো ফুটেজ সামনে আসে। তাতে রাজ্যের নেতা-মন্ত্রীদের সাথে টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল এসএমএইচ মির্জার মতো পুলিশ কর্তাকেও।

এই মির্জাকে মোট সাত বার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছিল সিবিআই। আজও নিজাম প্যালেসে ডাকা হয়েছিল মির্জাকে। সূত্রের খবর, সেখানে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের প্রশ্নের সদুত্তর না দেওয়ার পরই গ্রেফতারির সিদ্ধান্ত সিবিআই-এর। শাসকদলের একাধিক নেতাদের হয়ে এই পুলিশকর্তা টাকা সংগ্রহ করতেন বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। শাসকদলের একাধিক নেতাদের হয়ে এই পুলিশকর্তা টাকা সংগ্রহ করতেন বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। পুলিশকর্তাকে হেফাজতে নিয়ে তাঁর সঙ্গে কোন কোন প্রভাবশালীর যোগ রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *