CBI Summons Mukul Roy in Narada Case

Mukul Roy in Narada Case: মির্জার পর মুকুলকে ডাক

কলকাতা

মির্জার পর সামনে এলো মুকুল রায়ের (Mukul Roy in Narada Case) নাম। নারদকাণ্ডে সিবিআইয়ের হাজিরা এড়ালেন মুকুল রায়৷

নারদকাণ্ডের গতি বেশ প্রখর। দ্রুত নিষ্পত্তি করতে মরিয়া গোয়েন্দাদপ্তর। মির্জার পর সামনে এলো মুকুল রায়ের (Mukul Roy in Narada Case) নাম। নারদকাণ্ডে সিবিআইয়ের হাজিরা এড়ালেন মুকুল রায়৷ প্রতিনিধি মারফত চিঠি পাঠিয়ে তদন্তকারীদের কাছে সময় চাইলেন এই শীর্ষ বিজেপি নেতা৷ সূত্রের খবর, চিঠিতে মুকুল রায় জানালেন, পূর্বনির্ধারিত দলীয় কর্মসূচি থাকায় শুক্রবার তিনি হাজিরা দিতে পারবেন না৷ চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেছেন, আজ শুক্রবার জেপি নাড্ডা আসায় ব্যস্ত থাকবেন। অক্টোবরের ২ তারিখ পর্যন্ত সিবিআই-এর কাছে সময় চেয়ে নিয়েছেন তিনি। যদিও আজ শুক্রবার,সকাল ১১টায় তাঁর সিবিআইয়ের আধিকারিকদের সামনে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল৷

আসলে ধৃত আইপিএস মির্জার মুখোমুখি বসিয়ে মুকুলকে জেরা করতে চায় সিবিআই। আর তার সঙ্গে চালানো হবে নারদের স্টিং ভিডিয়ো। নারদের একটি অংশে কোটি টাকার লেনদেনের প্রসঙ্গ রয়েছে। ওই অংশটি চালিয়েই জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় সিবিআই। তবে মির্জার সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেননি মুকুল রায়। তিনি জানান, “ওঁরা ব্যবসার জন্য এসেছিলেন। আমি তখন মির্জার সঙ্গে দেখা করতে বলি। কোনও টাকা লেনদেনের কথা বলিনি। সিবিআই কী করবে সেটা তাঁদের ব্যাপার। আমার মত সত্য উদঘাটিত হোক। অনেককেই দেখা গিয়েছে টাকা নিতে। শোভন চট্টোপাধ্যায়, কাকলি ঘোষ দস্তিদার এবং আরও অনেকে আছেন। যা প্রমাণ করার আদালতই করবে। আমি বলার কেউ নই। বহু লোক টাকা নেয়। তবে রসিদ আছে কি না তা দেখতে হবে।”

গতকাল বৃহস্পতিবার নারদাকাণ্ডে প্রথম গ্রেফতার করা হয় আইপিএস আধিকারিক সৈয়দ মহম্মদ হোসেন মির্জাকে। মির্জার বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে বর্ধমানের পুলিস সুপার থাকাকালীন রাজ্যের শাসকদলের নেতাদের হয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। মির্জার থেকেই জট খুলতে শুরু করবে এই রহস্যের। ম্যাথু স্যামুয়েলের স্টিং অপারেশনের ফুটেজের সূত্র ধরেই এগোতে চাইছেন সিবিআই আধিকারিকরা। আর সেখানেই লুকিয়ে রয়েছে মির্জার গ্রেফতারির কারণ। ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, ম্যাথুর উল্টোদিকে বসে রয়েছেন এই সরকারি আধিকারিক। এবং ম্যাথুর সঙ্গে টাকাপয়সা নিয়ে কথা বলার সময়েই তাঁর ফোনে এক ব্যক্তি ফোন করেন। টাকা কোথায় পাঠানো হবে, ওই ব্যক্তিই মির্জাকে নির্দেশ দেন। ২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনের মুখে নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের স্টিং অপারেশন হইচই ফেলে দিয়েছিল রাজ্য রাজনীতিতে। এবার রহস্য উন্মোচনের খেলা সবাই দেখতে উদগ্রীব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *