CBI Takes Voice Sample of Iqbal Ahmed in Narada Case

Iqbal Ahmed in Narada Case: কন্ঠস্বরের নমুনা নিলো সিবিআই

কলকাতা

অসুস্থতার কারণে সিবিআই দফতরে যেতে পারবেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র ইকবাল আহমেদ (Iqbal Ahmed in Narada Case)।

২০১৬ তে পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা ভোটের আগে নারদা কান্ড সামনে আসে ৷ নারদা নিউজের সম্পাদক ম্যাথিউ স্যামুয়েল কয়েকটা ভিডিও প্রকাশ করেন যেখানে দেখা যায় যে কিছু তৃণমূল কংগ্রেসের প্রবীণ নেতাদের মতন দেখতে, তাদেরকে ঘুষ নিতে দেখা যায়৷ তার বদলে তাদেরকে সুযোগ দেওয়ার আশ্বাস দিতে দেখা যায়৷ কিন্তু তার পর এর জল অনেকদূর গড়িয়েছে।

অসুস্থতার কারণে সিবিআই দফতরে যেতে পারবেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র ইকবাল আহমেদ (Iqbal Ahmed in Narada Case)। তিনি অসুস্থ তাই কোর্টের কাছে ৩ সপ্তাহের সময় চেয়েছেন। কিন্তু ভয়েস টেস্টের জন্য নিম্ন আদালতের কাছে অনুমতি চেয়েছিল সিবিআই। এই নিম্ন আদালত সিবিআইকে অনুমতি দিয়েছিল। ইকবাল নিম্ন আদালতের অনুমতিকেও চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন হাইকোর্টে। কিন্তু বিচারপতি মধুমিতা মিত্র এই মামলাটি রিলিজ করে দেন। জানা যাচ্ছে আগামী সপ্তাহে এই মামলাটি শুনবেন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি।

এরপরই সিবিআই , বাড়িতে গিয়েই ইকবাল আহমেদের কন্ঠস্বর নমুনা সংগ্রহ করতে নামে। নারদাকাণ্ডের তদন্তে কন্ঠস্বরের নমুনা সংগ্রহ করতে তাই ইকবাল আহমেদের বাড়িতে যায় সিবিআই তদন্তকারী আধিকারিকরা। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তদন্তকারী অফিসার রঞ্জিত কুমার-সহ ৬ জনের দল ইকবালের বাড়িতে পৌঁছান। তাঁর সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেন। ইকবালের কণ্ঠস্বর নমুনা সংগ্রহের পাশাপাশি তাঁর ফ্ল্যাটের পাশে একটি প্রিন্টিং প্রেসে গিয়ে ভিডিওগ্রাফি করেন তাঁরা। জানা যাচ্ছে, সেই প্রিন্টিং প্রেসে প্রথম ম্যাথু স্যামুয়েলের সঙ্গে টাইগার মির্জা ইকবালের পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন। গত মঙ্গলবারই নিজাম প্যালেসে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল ইকবাল আহমেদের। সৌগত রায়, মদন মিত্ররা এদিন হাজিরা দিলেও যাননি ইকবাল আহমেদ। পাল্টা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন তিনি।

গত সপ্তাহ থেকে নিজাম প্যালেসে যাওয়া শুরু করেছেন তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রী-সাংসদ-বিধায়করা। গত মঙ্গলবার নিজাম প্যালেসে দমদমের সাংসদ সৌগত রায় এবং প্রাক্তন মদন মিত্রের সঙ্গে ডাকা হয়েছিল ইকবালকে। ইকবালের আইনজীবী হাইকোর্টে গিয়ে বলেছিলেন, তাঁর মক্কেলের গত ডিসেম্বরে সেরিব্রাল অ্যাটাক হয়েছিল। কিছুটা সময় দেওয়া হোক। সেই মামলা গ্রহণ করলেও শুনানি হয়নি আদালতে। কিন্তু এর মধ্যেই ইকবালের বাড়িতে সিবিআইয়ের ছুটে যাওয়া দেখে অনেকেই বলছেন, আর দেরি করতে চাইছে না তদন্ত এজেন্সি।হাওড়ার সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, অবিভক্ত বর্ধমানের প্রাক্তন পুলিশ সুপার এসএমএইচ মির্জাদের ডেকে ইতিমধ্যেই ভয়েস স্যাম্পল নিয়েছে সিবিআই। তদন্তের জট ক্রমশ গুটিয়ে আনা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *