DSP Davinder Singh Took Rs 12 Lakh From Hizbul Terrorists

DSP Davinder Singh: জঙ্গিদের থেকে DSP ১২ লাখ নিয়েছেন

কলকাতা

কাশ্মীরের কুলগাম জেলার মীরবাজার থেকে লস্কর-ই-তইবা ও হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গিদের গাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় দেবেন্দ্রকে (DSP Davinder Singh)।

দেশের নিরাপত্তা যার হাতে, তিনি নিজেকে বিকিয়ে দিয়েছেন জঙ্গিদের কাছে। গত শনিবার দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাম জেলার মীরবাজার থেকে লস্কর-ই-তইবা ও হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গিদের গাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় দেবেন্দ্রকে (DSP Davinder Singh)। শ্রীনগর বিমানবন্দরে অ্যান্টি হাইজ্যাকিং স্কোয়ার্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক ছিলেন তিনি। দু’জন জঙ্গির সঙ্গে যে গাড়িটি করে তিনি যাচ্ছিলেন, সেই গাড়ি থেকে একাধিক একে-৪৭ রাইফেল ও গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে গ্রেফতারের পর তদন্তে আরও বিস্ফোরক তথ্য উঠে এল ৷ ১২ লক্ষ টাকার বিনিময়ে দাভিন্দর সিং জঙ্গিদের সাহায্য করত এবং পুলিশের হাত থেকে বাঁচিয়ে নিরাপদ জায়গায় পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করত৷

গাড়িতে জম্মু রওনা হওয়ার আগে জঙ্গিরা যে দেবেন্দ্রর বাড়িতেই ছিলেন, সে কথাও দেবেন্দ্র স্বীকার করে নিয়েছেন বলে তদন্তকারী অফিসারদের একটি সূত্রে খবর। জঙ্গি যোগের অভিযোগে সোমবারই তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এ বার তাঁর রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে পাওয়া পুলিশ পদকের পাশাপাশি সমস্ত পদক কেড়ে নেওয়া হতে পারে বলে ইঙ্গিত মিলেছে। সার্বিক তদন্তভার এনআইএ-র হাতে দেওয়া হতে পারে বলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের একটি সূত্রে জানা গেছে। কেন ওই 3 জঙ্গিকে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে গোয়েন্দারা। প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন দিল্লিতে কোনও জঙ্গি হামলার ছক ছিল কি না, ধৃতদের জেরা করে জানার চেষ্টা চলছে।

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ ও ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর একটি যৌথ বাহিনী এই ঘটনার তদন্ত করছে৷ তদন্তে উঠে এসেছে— এই প্রথম নয়, আগে আরও অন্তত পাঁচটি ক্ষেত্রে জঙ্গিদের সাহায্য করেছেন দেবেন্দ্র। দেবেন্দ্রর সঙ্গে যে দু’জন জঙ্গি ধরা পড়েছে, তারাও পাগড়ি পরে ছিল দেবেন্দ্রর মতোই। জানা গেছে, গাড়িটি চণ্ডীগড় যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। ওই দুই জঙ্গিকে ঘাঁটি থেকে বাইরে নিয়ে যাচ্ছিলেন দেবেন্দ্রই। তারা হল কুখ্যাত হিজবুল জঙ্গি নাভিদ আহমেদ ভাট ও লস্কর জঙ্গি রফি আহমেদ। সোপিয়ান এলাকায় একাধিক পুলিশকর্মীকে খুনের অভিযোগ রয়েছে নাভিদের বিরুদ্ধে। প্রজাতন্ত্র দিবসের আগে আরও সতর্ক দেশের গোয়েন্দা দপ্তর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *