Haryana Chief Minister Manohar Lal Khattar will Implement NRC in Haryana

NRC in Haryana: অসমের পর এবার হরিয়ানায় এনআরসি !

কলকাতা

ভারতের বিজেপি-শাসিত রাজ্য হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাট্টার জানান , তিনিও আসামের মতো হরিয়ানায় এনআরসি (NRC in Haryana) চান।

এনআরসি বা জাতীয় নাগরিক নিবন্ধনের কোপে থাকা আসামের পর এবার একই পথে যাচ্ছে হরিয়ানা (NRC in Haryana) । ভারতের বিজেপি-শাসিত রাজ্য হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাট্টার জানান , তিনিও আসামের মতো হরিয়ানায় এনআরসি চান। কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকার অনুমোদন দিলে তিনি তাঁর রাজ্যে শুরু করতে পারেন এনআরসি। আসলে অনুপ্রবেশ রুখতে তাঁরও দাবি, গোটা ভারতেই এনআরসির মাধ্যমে নাগরিক তালিকা তৈরি হোক। এতে করে অনুপ্রবেশ কমবে। দেশের নিরাপত্তা আরও জোরদার হবে।

এই এনআরসি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও আসাম সরকারের মধ্যে এখনো বিরোধ চলছে। আসাম সরকার মমতার বিরুদ্ধে চারটি মামলা দায়ের করে জানিয়েছে তিনি এনআরসি নিয়ে অযথা দেশে উত্তেজনা সৃষ্টি করছেন। দেশকে বিভাজন করছেন। অন্যদিকে মমতাও আসামের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দায়ের করেছে তিনটি মামলা। এখন এই দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে মামলার লড়াই চলছে।

তবে কবে এখানে এনআরসি হবে, সে ব্যাপারে কিছু বলেন নি তিনি। এই নিয়ে দ্বিতীয়বারের মেয়াদে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পদে আছেন খাট্টার। রাজ্যে আসন্ন বিধানসভা ভোট উপলক্ষে বিজেপি আয়োজিত ‘জনসম্পর্ক কর্মসূচি’তে এদিন তিনি বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করেন। এনারা হলেন, রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের প্রাক্তন চেয়ারম্যান বিচারপতি এইচ এস ভল্লা এবং প্রাক্তন নৌসেনা প্রধান অ্যাডমিরাল সুনীল লাম্বা। তিনি জানান, “রাজ্য মানবাধিকার কমিশনের সভাপতিত্ব ছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন ভল্লা। এখন তিনি এনআরসি নিয়ে কাজ করছেন। আমিও ওঁকে বলেছি যে আমরা এখানে এনআরসি লাগু করব এবং কীভাবে লাগু করা যায়, সে ব্যাপারে ওঁর সাহায্যও চেয়েছি। রাজ্যের মানুষ যদি তার দ্বারা উপকৃত হন, তাহলে আমরা রাজ্যে আইন কমিশন স্থাপনও করব।”

এদিকে বিচারপতি ভল্লা জানান, “হ্যাঁ, আমি দুটি বিষয় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে প্রস্তাব দিয়েছি- হরিয়ানায় এনআরসি এবং আইন কমিশন। এখন শুধু অসমেই এনআরসি রয়েছে। ফলে, যদি মুখ্যমন্ত্রী চান তাহলে হরিয়ানাতেও এনআরসি হতে পারে। রাজ্যে খাঁটি বাসিন্দাদের একটি কার্ড দেওয়া হবে। এখনও পর্যন্ত এটা কথার কথা। কিন্তু মানুষ যাতে সমস্যার সম্মুখীন না হন, সে জন্য হরিয়ানায় এনআরসি লাগু করা ওঁর ইচ্ছা। এটা আধার কার্ডের মতোই একটা কার্ড হবে, কিন্তু আলাদা একটা কার্ড।” আবার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কংগ্রেস নেতা ভুপিন্দর সিং হুডা মনোহরলাল খট্টারকে সমর্থন করে জানান, ‘মুখ্যমন্ত্রী যা বলেছেন, আইনের আওতায় বলেছেন৷ বিদেশিদের বিতাড়ন দরকার৷ বিদেশি চিহ্নিত করা সরকারের দায়িত্ব৷’ এবার দেখার বিজেপিকে নিশ্চিন্ত করতে কবে হরিয়ানায় এই এনআরসি চালু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *