Hindu Jagran Manch Rally in Esplanade & Sealdah in Kolkata

Hindu Jagran Manch: মিছিল, ধর্মতলায় ও শিয়ালদহে ধুন্ধুমার

কলকাতা

পুলিশের অনুমতি ছাড়াই হিন্দু জাগরণ মঞ্চের (Hindu Jagran Manch) মিছিলের চেষ্টা ঘিরে আজ বুধবার দুপুরে শিয়ালদহের পরে এবার উত্তেজনা ছড়াল ধর্মতলায়।

কলকাতার এক অংশ অচল হয়ে উঠলো। পুলিশের অনুমতি ছাড়াই হিন্দু জাগরণ মঞ্চের (Hindu Jagran Manch) মিছিলের চেষ্টা ঘিরে আজ বুধবার দুপুরে শিয়ালদহের পরে এবার উত্তেজনা ছড়াল ধর্মতলায়। শহরের গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকায় পথ অবরোধ বিক্ষোভকারীদের। শিয়ালদহ স্টেশন চত্বরে প্রথমে ওই মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। এরপর এনআরএস হাসপাতালের সামনে থেকে মিছিল শুরু হয়। আসলে আরএসএস কর্মীকে মেটিয়াবুরুজে গুলি করার প্রতিবাদে শিয়ালদহ থেকে মিছিলের ডাক দিয়েছিল হিন্দু জাগরণ মঞ্চ। তাকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার বাধল পুলিশ এবং মিছিলকারীদের মধ্যে।

পুলিশ অবরোধ তোলার চেষ্টা করলে তাতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বিজেপি নেতা অনুপম হাজরার বিরুদ্ধে। পুলিশ তাঁকে গ্রেফতারের উদ্যোগ নিয়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পুলিশকর্মীদের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয় অনুপমের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিআইএসএফ জওয়ানদের। পুলিশের দাবি, অনুমতি ছাড়া মিছিল করার জন্য হিন্দু জাগরণ মঞ্চের কর্মী সমর্থকদের বাধা দেওয়া হয়। অনুমতি ছাড়া মিছিল করার কথা মেনে নিয়ে পালটা কর্মী সমর্থকদের দাবি, অনুমতি নিয়েও মিছিল করতে দেওয়া হয়নি। তাই অনুমতি ছাড়াই মিছিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মেটিয়াবুরুজের লিচুবাগান এলাকায় সোমবার গুলি করা হয় বীরবাহাদুর সিংহ নামে এক যুবককে। তিনি সঙ্ঘের সক্রিয় কর্মী। বিষয়টি নিয়ে সঙ্ঘ পরিবারের বিভিন্ন সংগঠন এবং বিজেপি ক্রমশ সুর চড়াতে শুরু করেছে।

চিকিৎসাধীন বীরবাহাদুরকে দেখতে গত কয়েক দিন ধরে দফায় দফায় হাসপাতালে ছুটেছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, সব্যসাচী দত্ত-সহ বিজেপির নেতারা । পরিস্থিতিতে রণকৌশল বদলে শিয়ালদহ স্টেশনের পরিবর্তে এনআরএস হাসপাতাল থেকে মিছিল শুরু করেন হিন্দু জাগরণ মঞ্চের শ’খানেক সমর্থক। তখন সেখানে মাত্র পাঁচ থেকে ছ’জন পুলিশকর্মী ছিলেন। ফলে পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে এগিয়ে যায় মিছিল। খবর পেয়ে দ্রুত মৌলালির দিকে এগিয়ে যায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। পুলিশ মিছিলের গতিরোধ করার চেষ্টা করলে দুই তরফে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এই পরিস্থিতিতে মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ শুরু করে পুলিশ। ডিসির নির্দেশে পুলিশ লাঠি চালিয়ে মিছিল ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *