JeM Targets PM Modi, Amit Shah and Ajit Doval

JeM Targets: নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ ও অজিত ডোভাল

কলকাতা

জইশ-ই-মহম্মদের (JeM Targets) টার্গেট ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল।

একটু দেরিতে হলেও এটা খুব একটা অস্বাভাবিক নয়। জইশ-ই-মহম্মদের (JeM Targets) টার্গেট ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। আসলে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ বিলোপের সিদ্ধান্তের কারণে তাঁদের টার্গেট করেছে পাক সন্ত্রাসবাদী সংগঠন। একটি হুমকি চিঠি পাওয়ার পর জারি করা হল সতর্কতা। জানা যাচ্ছে, ব্যুরো অফ সিভিল অ্যাভিয়েশন সিকিওরিটি সম্প্রতি একটি চিঠি পেয়েছে। তাতে লেখা আছে, মোদী, শাহ ও ডোভালকে টার্গেট করেছে জইশ। ৩৭০ ধারা বিলোপের বদলা নেওয়া হবে বলেও হুমকি চিঠিতে লেখা আছে। জানানো হয়েছে, এ জন্য তৈরি হচ্ছে জইশের একটি আলাদা মডিউল।

সেই চিঠিতে জম্মু, পাঠানকোট, অমৃতসর, জয়পুর গান্ধীনগর, কানপুর ও লখনউ-সহ দেশের ৩০টি শহরে জইশ হামলার ছক কষছে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়া তাদের নজরে রয়েছে দেশের চারটি গুরুত্বপূর্ণ বিমানবন্দরও। গোয়েন্দা সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, জম্মু ও কাশ্মীরে শান্তি ফেরানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার যে পদক্ষেপ নিচ্ছে তা পছন্দ নয় জইশের। ভূস্বর্গ অশান্ত থাকলেই তাদের সুবিধা। পাশাপাশি সেখানে উন্নয়নমূলক কাজও করতে দিয়ে চায় না তারা। আর এই বিষয়ে তাদের পথে কাঁটা হলেন প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা। তাই তাঁদের রাস্তা থেকে সরাতে চায় মাসুদ আজহারের সংগঠন।

মাসুদ আজহারকে সরিয়ে পাকিস্তানি জঙ্গি সংগঠন জইশ -এ মহম্মদের দায়িত্ব নিয়েছে রউফ অসগর। আর ভাই দায়িত্ব নেওয়ার পরই কার্যত ভোল বদল করে ফেলেছে মাসুদ আজহারের জঙ্গি সংগঠন। ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রের খবর, পাকিস্তানি জঙ্গি সংগঠন জইশ-এ-মহম্মদ একটি বিশেষ স্কোয়াড তৈরি করতে চলেছে। যা পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-এর মদতে তৈরি হচ্ছে। আর এই স্পেশ্যাল স্কোয়াডের লক্ষ্য় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পিছনে মোদি, শাহ ও ডোভালের মস্তিষ্ক রয়েছে বলেই মনে করে পাকিস্তান। আর তাই তাদের আশ্রয় থাকা জঙ্গি গোষ্ঠীগুলিকে এই তিনজনের বিরুদ্ধে হামলা চালানোর উসকানি দেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *