J&K Grenade Attack in Srinagar Kills 1 and 22 Injured

J&K Grenade Attack: গ্রেনেড হামলায় নিহত ১ ও আহত ২২

কলকাতা

বিস্ফোরণে নিহত ১ , আহত আরও ২২ জন। আজ সোমবার জম্মু-কাশ্মীরের শ্রীনগরের লালচকে মৌলনা আজাদ রোড গ্রেনেড বিস্ফোরণ (J&K Grenade Attack) হয় ।

আবার রক্তপাত জম্মু-কাশ্মীরে। সেখানে আজ গ্রেনেড বিস্ফোরণে নিহত ১ , আহত আরও ২২ জন। আজ সোমবার জম্মু-কাশ্মীরের শ্রীনগরের লালচকে মৌলনা আজাদ রোড গ্রেনেড বিস্ফোরণ (J&K Grenade Attack) হয় । আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ‌। যদিও আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এর আগেও গত সপ্তাহে ইকবাল মার্কেটের কাছে গ্রেনেড হামলায় ১৯ জন আহত হন। বাজার এলাকায় নিরাপত্তাবাহিনীকে উদ্দেশ্য করে গ্রেনেড ছোড়ে জঙ্গিরা। বিস্ফোরণে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়। নিহত ব্যক্তি উত্তরপ্রদেশের সাহারনপুরের বলে জানা গেছে।

আজ জম্মু-কাশ্মীরের শ্রীনগরের লালচকে গ্রেনেড হামলায় প্রাণ হারালেন এক ব্যক্তি। আহত ২২ জন। পর পর সাধারণ মানুষদের উপর হামলায় আতঙ্কের পরিবেশ নয়াতম কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে। লালচকে মৌলনা আজাদ রোড হঠাত্ই প্রবল বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে। গত একমাসে একাধিক এমন হামলা হয়েছে উপত্যকায়। তবে এখনও কোনও জঙ্গিগোষ্ঠী এর দায় স্বীকার করেনি। এখানে বিশেষ মর্যাদা লোপ পাওয়ার পর স্থানীয় যুবকদের মধ্যে জঙ্গি দলে যোগ দেওয়ার প্রবণতা বাড়ছে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক।

এতো নিরাপত্তার মধ্যেও রক্তপাত থামানো সম্ভব হচ্ছে না। গত সপ্তাহেই ২৮ অক্টোবর ইকবাল মার্কেটের কাছে গ্রেনেড হামলায় ১৯ জন আহত হন। তারপরের দিনই জম্মু-কাশ্মীরের কুলগামে হামলা চালায় জঙ্গিরা। জঙ্গিদের গুলিতে প্রাণ হারান পশ্চিমবঙ্গের ৫ বাসিন্দা। ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার মতে, উপত্যকার সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়াতে নিরাপরাধ মানুষকে হত্যা করেছে পাকিস্তানি জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের জঙ্গিরা। ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার পর থেকেই পাকিস্তান এবং পাকিস্তান সমর্থিত জঙ্গিরা আতঙ্ক এবং অশান্তি ছড়ানোর কাজ করে যাচ্ছে। পাকিস্তানের তরফ থেকে লাগাতার সীমান্ত দিয়ে ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ করানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে। সজাগ ভারতীয় জওয়ানদের কারণে অনেকক্ষেত্রে পাকিস্তানের জঙ্গি অনুপ্রবেশ করানোর ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *