Maharashtra and Haryana Election Date 2019

Maharashtra and Haryana Election: ২১শে অক্টোবর ভোট

কলকাতা

আজ শনিবার মহারাষ্ট্র এবং হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনের (Maharashtra and Haryana Election) দিনক্ষণ ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন।

আবার বাজলো নির্বাচনের দামামা। গণতন্ত্রের আসল সাফল্য লুকিয়ে থাকে এই নির্বাচনের মধ্যে। দেশের লোকসভা ভোট মিটতেই শুরু হলে বিধানসভা নির্বাচনের ধারা। আজ শনিবার মহারাষ্ট্র এবং হরিয়ানার বিধানসভা নির্বাচনের (Maharashtra and Haryana Election) দিনক্ষণ ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন। শনিবার দিল্লিতে মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা, সাংবদিক বৈঠকে ঘোষণা করেন দুই রাজ্যের নির্বাচনী নির্ঘণ্ট। এবার এই দুটি রাজ্যেই নির্বাচন হবে এক দফায় এবং একসঙ্গেই। নির্বাচনী বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে ২৭শে সেপ্টেম্বর। আর মনোনয়ন দেওয়ার শেষ দিন ধার্য করা হচ্ছে ৪ অক্টোবর। আর সেই মনোনয়নের সার্বিক ত্রুটিমুক্তি হবে ৫ই অক্টোবর। প্রার্থীদের নাম প্রত্যাহারের শেষ দিন ধার্য ৭ই অক্টোবর। দুই রাজ্যে একসঙ্গে নির্বাচন হবে ২১শে অক্টোবর। আর ২৪শে অক্টোবর জানা যাবে ভোটের ফলাফল।

একটু ভালো ভাবে দেখলে বোঝা যাচ্ছে, দুই রাজ্যেই একটু হলেও এগিয়ে বিজেপি। লোকসভা ভোটের ফলাফলও তাঁদের দিকেই। ২০১৪ সালের বিধানসভা নির্বাচনে মহারাষ্ট্রের ২৮৮ আসনের মধ্যে জিতেছিল ১২২টি আসন। অন্যদিকে শিবসেনা জিতেছিল ৬৩টি। অর্থাত্‍ বিজেপি–শিবসেনার জোট দখল করেছিল ১৮৫টি আসন। আর অপপ্রান্তে বিরোধী কংগ্রেস ৪২ টি এবং এনসিপি ৪১টি আসন পেয়েছিল। অন্যান্যদের দখলে গিয়েছিল ২০টি আসন। সম্প্রতি লোকসভা নির্বাচনেও মহারাষ্ট্রে খুব ভালো ফল করেছে বিজেপি–শিবসেনা জোট। বিজেপিকে এবার লড়তে হবে কংগ্রেস–এনসিপি জোটের বিরুদ্ধে। দু’‌দলই এবার লড়বে ১২৫টি করে আসনে। অন্যদিকে, বিজেপি–শিবসেনা জোটের আসনরফা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। এই দুই জোটের বাইরে লড়াইয়ে থাকবে রাজ ঠাকরের মহারাষ্ট্র নব নির্মাণ সেনাও। অন্যদিকে, ৯০ আসনবিশিষ্ট হরিয়ানা বিধানসভায় আগেরবার ৪৭টি আসন জিতে সরকার গড়েছিল বিজেপি। আইএনএলডির দখলে গিয়েছিল ১৯টি আসন। কংগ্রেস জিতেছিল মাত্র ১৫টি আসন।

২১ অক্টোবর দেশ জুড়ে বিভিন্ন রাজ্যের মোট ৬৪টি বিধানসভা আসনে হবে উপ-নির্বাচন। যার মধ্যে রয়েছে, অরুনাচল প্রদেশের ১টি আসন, বিহারের ৫টি আসন, ছত্তিশগড়ের ১টি আসেন, অসমের ৪টি আসন, গুজরাটের ৪টি আসনে, হিমাচল প্রদেশের ২টি আসনে, কর্নাটকের ১৫টি আসনে, কেরালার ৫টি আসনে, মধ্যপ্রদেশের ১টি আসনে, মেঘালয়ের ১টি আসনে, ওড়িশার ১টি আসনে, পুদুচেরির ১টি আসনে, পাঞ্জাবের ৪টি আসনে, রাজস্থানের ২টি আসনে, সিকিমের ৩টি আসনে, তামিলনাড়ুর ২টি আসনে, তেলেঙ্গানার ১টি আসনে এবং উত্তরপ্রদেশের ১১টি আসনে।কমিশনের তরফে বলা হয়, ভোট গ্রহণ পর্ব অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে দুই রাজ্যজুড়ে কড়া সুরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। প্রতিটি জেলায় জেলায় নজরদারি চালাবে নির্বাচনে যুক্ত বিশেষ প্রতিনিধিদের দল। পাশাপাশি মহারাষ্ট্রের মাও অধ্যুষিত এলাকায় ভোট শান্তিপূর্ণ ও অবাধ করার জন্য মোতায়েম করা হবে বিশেষ নিরাপত্ত বাহিনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *