Prashant Kishor Reports on TMC in North Bengal

Prashant Kishor Reports: তৃণমূল নিয়ে প্রথম রিপোর্ট

কলকাতা

মাত্র ৫ মাসের মাথায় তৃণমূল নিয়ে প্রথম রিপোর্ট দিলেন কর্নেল প্রশান্ত কিশোর (Prashant Kishor Reports)। এই চমকদাতা পিকের রিপোর্ট বলছে, উত্তরবঙ্গে ফিরছে তৃণমূল।

নির্বাচনের পেশাদারি উদ্ধারকারী। তাকে নিয়েই মজেছে বাংলার রাজনীতি। অনেকটাই নীরব থেকে এই বিভাগের সেনাপতি প্রশান্ত কিশোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন কয়েক মাস ধরে। পরীক্ষার ফল জানতে অপেক্ষা করতে হবে সবাইকে। কঠিন দায়িত্ব নিয়ে মাত্র ৫ মাসের মাথায় তৃণমূল নিয়ে প্রথম রিপোর্ট দিলেন কর্নেল প্রশান্ত কিশোর (Prashant Kishor Reports)। এই চমকদাতা পিকের রিপোর্ট বলছে, উত্তরবঙ্গে ফিরছে তৃণমূল। পদ্মফুল সরে পুনরায় ফুটছে তৃণমূল। দলের একাধিক সাংসদ, সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে পরাজিত কয়েকজন প্রার্থী, একাধিক মুখপাত্র-সহ বেশ কিছু নেতার সঙ্গে একাধিবার বৈঠক করেছেন এই নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট।

কিছুটা হতাশা এসেছে গত লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে। তাই হারানো জমি ফিরে পেতে জনসংযোগের নতুন স্ট্র্যাটেজি নেওয়া হয়েছে। এতদিন প্রশান্ত কিশোর নিজে কোনও রিপোর্ট দেননি। তাই ৫ মাসের মাথায় তৃণমূল সম্পর্কে রিপোর্ট দিলেন পিকে। লোকসভার গেরুয়া ঝড়ে উত্তরবঙ্গে কার্যত ভরাডুবি হয়েছে তৃণমূলের। উত্তরবঙ্গের ২৮টি কেন্দ্রের মধ্যে মাত্র ৪টি কেন্দ্রে এগিয়ে আছে তৃণমূল। মোট ৪২টি আসনের মধ্যে ১৮টি গিয়েছে গেরুয়া শিবিরের দখলে। তৃণমূলের আসন ৩৪ থেকে কমে হয়েছে ২২। দুই দলের প্রাপ্ত ভোটের ফারাক মাত্র ৩ শতাংশ।এই অবাক করা হারের কারণ খুঁজে বের করতে দলে ভিতর ‘তদন্ত’ হয়। সেই তদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে উত্তরবঙ্গে বেশ কিছু সাংগঠনিক রদবদল করা হয়।

প্রথম চমক এসেছে পিকের ” দিদিকে বলো” কর্মসূচিতে। উত্তরবঙ্গের ২০টি বিধানসভা কেন্দ্র চা-বাগান অধ্যুষিত। দলাদলির জন্য ভোট হারিয়েছে তৃণমূল। পাশাপাশি আদিবাসী ও জনজাতি ভোটও তৃণমূলের থেকে দূরে সরে যায়। সেই ক্ষত উদ্ধারে পিকে ও দিদি একসাথে নেমেছেন। লোকসভা নির্বাচনে বিপর্যয়ের পর তৃণমূল সিদ্ধান্ত নেয়, দলীয় মুখপাত্রের দায়িত্ব ভাগ করে দেওয়া হবে। জাতীয় স্তরে এই দায়িত্ব পালন করছেন মহুয়া মৈত্র, কাকলী, সৌগত রায়, এবং সুদীপ। রাজ্যস্তরে দায়িত্বে আছেন চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, ব্রাত্য বসু, শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়েরা। লড়াইকে সামলে মাথা ঠান্ডা রেখে এগিয়ে যেতে চাইছেন পিকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *