Ranjan Gogoi CJI in Kashmir to Inspect the Situation

CJI in Kashmir: কাশ্মীর যাবেন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ

কলকাতা

নোটিস পাঠাল দেশের সর্বোচ্চ আদালত। তার সাথে নিজে কাশ্মীরে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখবেন বলে জানালেন দেশের প্রধান বিচারপতি (CJI in Kashmir) ।

আজ সোমবার কাশ্মীর নিয়ে প্রয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা শোনালেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। জম্মু–কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাকে মুক্তির প্রশ্নে কেন্দ্র এবং জম্মু–কাশ্মীর প্রশাসনকে নোটিস পাঠাল দেশের সর্বোচ্চ আদালত। তার সাথে নিজে কাশ্মীরে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখবেন বলে জানালেন দেশের প্রধান বিচারপতি (CJI in Kashmir) । কাশ্মীরকে অবিলম্বে স্বাভাবিক করে তোলারও নির্দেশ দিয়ে কেন্দ্রকে ভর্ৎসনা করল শীর্ষ আদালত।

সাংসদ তথা এমডিএমকে–এর সাধারণ সম্পাদক ভাইকো ফারুক আবদুল্লার মুক্তির দাবিতে যে হলফনামা দাখিল করেছেন, তার শুনানি হয় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি এসএ বোবদে এবং এসএ নাজিরের বেঞ্চে। সেখানে ফারুক আবদুল্লাকে আটক করে হেপাজতে রাখা হয়েছে কি না তা জানতে চান বিচারপতিরা। কিন্তু ভাইকোর আইনজীবী বলেন, ‘‌কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজেই বলেছিলেন যে ফারুক আবদুল্লাকে আটক করা হয়নি। কিন্তু তিনি এখন কোথায় তা আমরা জানি না।’‌

কাশ্মীরকে অবিলম্বে স্বাভাবিক করে তোলারও নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। আবদুল্লাকে চেন্নাইয়ে আয়োজিত একটি সেমিনারে অংশ নেওয়ারও অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না বলে জানান ভাইকোর আইনজীবী। অথচ কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়, কাশ্মীরে দূরদর্শনের মতো টিভি চ্যানেল, এফএম চলছে। রেস্ট্রিকটেড এলাকায় যাওয়ার জন্য সাংবাদিকদের পাস দেওয়া হচ্ছে। সরকার সবরকমভাবে সাহায্য করছে। কাশ্মীরের সব খবরের কাগজ চলছে। কাশ্মীরের ৮৮% থানার এলাকাগুলি থেকে অধিকাংশ কড়াকড়ি তুলে নেওয়া হয়েছে। তবু সুপ্রিম কোর্ট অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে ভেনুগোপালকে বলে, জাতীয় নিরাপত্তা অটুট রেখে উপত্যকাকে স্বাভাবিক করতে সচেষ্ট হোক কেন্দ্রীয় সরকার ও জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন।

জম্মু ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর মানুষ চিকত্সার সুযোগ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ তুলছে বিভিন্ন মহল। এছাড়াও উঠছে যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্নও। মামলার শুরুতে অনুরাধা ভাসিনের আইনজীবী ব্রিন্দা গ্রোভারের সওয়ালের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেন, এনিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারে জম্মু ও কাশ্মীর হাইকোর্ট। কাশ্মীরের শিশু-কিশোরদের আটক করা হচ্ছে বলে আদালতে জানান সমাজকর্মী এণাক্ষী গঙ্গোপাধ্যায়ের আইনজীবী। তিনি বলেন, ৩৭০ ধারা বিলোপের পর বেআইনিভাবে শিশু কিশোরদের আটক করে রাখা হয়েছে। ১৮ বছরের কম বয়স্কদের ছেড়ে দেওয়া উচিত। প্রধান বিচারপতি বলেন, তিনি নিজে শ্রীনগর যাবেন। জম্মু ও কাশ্মীর হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি যদি অন্য কথা বলেন তাহলে তার পরিণাম ভোগ করতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *