Ration Shops in India will Sell Fish, Meat and Eggs Too

Ration Shops in India: রেশন দোকানে মাছ, মাংস, ডিম!

কলকাতা

রেশন (Ration Shops in India) সেখানে অনেকটাই স্বস্তির দেখায়। কেরোসিন, চাল, ডাল, চিনির মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস এখানে পাওয়া …

সময় পাল্টাচ্ছে। পাল্টাচ্ছে মানুষের ক্রয়ের ক্ষমতা। প্রয়োজনের সাথে তাল মেলাতে খুব সমস্যায় পড়ছেন দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ্য। বাজারের প্রায় সকল জিনিসই ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। রেশন (Ration Shops in India) সেখানে অনেকটাই স্বস্তির দেখায়। কেরোসিন, চাল, ডাল, চিনির মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস এখানে পাওয়া যায় একটু সস্তায়। রেশনের দানের পাত্র আরও প্রশস্ত হচ্ছে। এবার থেকে রেশন দোকানে পাওয়া যেতে পারে মাছ, মাংস, ডিম। কেন্দ্রীয় সরকারের নীতি আয়োগ এমন একটি প্রয়োজনের প্রস্তাব দেওয়ার কথা ভাবছে। দেশের অগণিত দুঃস্থ মানুষের প্রোটিনের চাহিদা মেটাতেই এমন সিদ্ধান্তের কথা ভাবছে নীতি আয়োগ।

ভাত ও ডাল দিয়েই দিন কাটায় দেশের অনেক মানুষ। ফলে শারীরিক দুর্বলতাকে অস্বীকার করা যায় না। সরকারের এক সমীক্ষা বলছে, দেশের প্রতি ১০ জন শিশুর মধ্যে চারজনের শরীরে পর্যাপ্ত প্রোটিনের অভাবে ভুগছে। বেশিরভাগ শিশুরা রাস্তার খোলা খাবার ও জাঙ্ক ফুড-এর দিকে ছুটছে। ফলে দিন দিন বাড়ছে নানা জটিল অসুখের প্রবণতা। সেই কারণেই এবার সকল রেশন দোকানে মাছ, মাংস, ডিম সস্তায় পাওয়া গেলে দুঃস্থ মানুষদের প্রোটিনের চাহিদা মিটতে পারে বলে মনে করছে সরকার। তবে ভর্তুকির জন্য সরকারের উপর আর্থিক চাপ বাড়তে পারে। রেশন দোকানে চাল, ডাল, নুন, তেলসহ একাধিক নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ভর্তুকিসমেত বিক্রি করার জন্য সরকারের অতিরিক্ত ১।৮৪ লাখ কোটি টাকা খরচ হয়।

সমস্যা কিছুটা সমাধান করা সম্ভব হবে। তবে এটাও ঠিক যে, রেশন দোকানে ভর্তুকিসমেত মাছ, মাংস, ডিম বিক্রি শুরু করলে সরকারের উপর আর্থিক চাপ কিছুটা বাড়বে। সেটা ভেবেই পরিকল্পনা করতে শুরু করেছে দেশের নীতি আয়োগ। সারা দেশের তথা রাজ্যের রেশন দোকানে মাছ, মাংস পাওয়া যেতে পারে সামনের বছর থেকে। জানা যাচ্ছে, আগামী ২০২০-তে এই প্রস্তাব পাস হয়ে গেলে এপ্রিল থেকেই চালু এই প্রক্রিয়া। কার্ডের মাধ্যমে রেশন থেকে দেশের সকলপ্রান্ত থেকে সাধারণ মানুষেরা গ্রহণ করতে পারবে মাছ, মাংস ও ডিম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *