Shatabdi Roy in ED Office to Give Back Money Taken from Saradha

Shatabdi Roy in ED Office: সরদার টাকা ফেরত দিতে

কলকাতা

Shatabdi Roy in ED Office: টাকা ফেরতের বিষয় নিয়েও ইডি আধিকারিকদের সঙ্গে তার আইনি পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা হয়।

দিন বদলালেও ইতিহাস বদলায় না। সারদা মামলায় টাকা ফেরত দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে (Shatabdi Roy in ED Office) অনেক আগেই চিঠি দিয়েছিলেন। আজ সেই বিষয়ে চূড়ান্ত কথা বলতে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-এর দফতরে গেলেন তৃণমূল এমপি ও অভিনেত্রী শতাব্দী রায়। আরো চমকের বিষয়, রোজ ভ্যালি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে আবার তলব করল সিবিআই। সিবিআই আর রাজীব কুমার এ মধুর সম্পর্কের ইতি কবে হবে তার দিকে তাকিয়ে রাজ্যবাসী ।

সারদা গোষ্ঠীর সঙ্গে বিজ্ঞাপনের কারণে টাকা আদানপ্রদানের সূত্র ধরে এর আগে ইডি এবং সিবিআই উভয়েই তৃণমূল সাংসদ, শতাব্দী রায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছিল। সিবিআই এবং ইডি সূত্রে খবর, প্রথম থেকেই তিনি তদন্তে সহযোগিতা করে আসছেন। ইডি আধিকারিকদের দাবি, সারদা গোষ্ঠী থেকে শতাব্দী রায় ধাপে ধাপে প্রায় ২৯ লাখ টাকা পেয়েছিলেন। এও জানা গিয়েছে যে, শতাব্দী তদন্তকারীদের কাছে স্বীকার করেছেন, সারদা গোষ্ঠীর সঙ্গে তাঁর ব্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসাবে চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তি অনুযায়ী সুদীপ্ত সেনের সংস্থার কাছ থেকে ওই ২৯ লক্ষ টাকা তিনি পেয়েছিলেন। এবং তিনি এও বলেন ওটা ছিল ওনার কাজের পারিশ্রমিক, কোনো গ্রাহকের টাকা তিনি নেননি ।

জানা যাচ্ছে, তদন্ত চলাকালীনই শতাব্দী ইডি আধিকারিকদের চিঠি দিয়ে জানান, তিনি সারদা থেকে পাওয়া টাকা ফেরত দিতে চান। এর আগে ইডি, সারদা মামলায় বক্তব্য রেকর্ড করেছিল অভিনেতা এবং প্রাক্তন তৃণমূল রাজ্যসভা সাংসদ মিঠুন চক্রবর্তীর। ইডির তদন্তে উঠে এসেছিল, মিঠুনের সঙ্গেও সারদা গোষ্ঠীর আর্থিক লেনদেনর খবর। মিঠুন চক্রবর্তীও সেই টাকা ফেরত দিয়ে দেন স্বইচ্ছায় ।

সেই পথেই শতাব্দী রায়ও টাকা ফেরত দেওয়ার কথা জানান ইডিকে। বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ শতাব্দী রায় সল্টলেকের ইডি ভবনে পৌঁছান। তিনি এ দিন ইডি দফতরে প্রবেশ করবার সময়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তবে সূত্রের খবর, আগের মাসে তাঁকে তলব করা হলে তিনি ইডির কাছ থেকে সময় চেয়ে নিয়ে ছিলেন। সেই তদন্তের জের ধরেই শতাব্দী এ দিন ইডি অফিসে হাজিরা দেন এবং কোথাও রাখেন। একইসঙ্গে টাকা ফেরতের বিষয় নিয়েও ইডি আধিকারিকদের সঙ্গে তার আইনি পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা হয়। প্রায় দু ঘন্টা চল্লিশ মিনিট ইডি দফতরে কাটানোর পর, যাওয়ার সময় শতাব্দী রায় বলেন, ‘‘ইডি আমার কাছে কিছু নথি চেয়েছিল। সেই নথি জমা দিলাম।ভবিষ্যতে ফের ডাকলে আবার আসব।”

আরেকদিকে রোজ ভ্যালি মামলাতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিস পাঠানো হলো প্রাক্তন কলকাতা পুলিশ কমিশনরকে। সিবিআই সূত্রের খবর, শীর্ষ আদালতে দেওয়া হলফনামায় রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে রোজভ্যালি মামলাতেও সিবিআইয়ের কাছে তথ্য গোপন করার অভিযোগ করেছিল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। চিটফান্ড তদন্তের জন্য রাজ্য সরকার গঠিত কমিটির অন্যতম প্রধান আধিকারিক হিসাবে রোজভ্যালির বিরুদ্ধে হওয়া মামলা সিবিআইকে জানানো হয়নি বলে অভিযোগ। সেই সূত্র ধরেই তাঁকে তলব করা হয়। কিন্তু এদিকে রাজীব কুমার আজই চিঠি লিখে সিবিআইয়ের কাছে সময় চেয়ে নিয়েছেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *