Tapan Sinha was one of the most prominent Indian film directors of his time forming a legendary quartet with Satyajit Ray

Tapan Sinha: পরিচালক তপন সিংহের প্রয়াণ দিবস

কলকাতা

তপন সিংহ (Tapan Sinha) একজন বিখ্যাত ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র পরিচালক। তিনি এক বার বলেছিলেন, ‘‘এখন কী ভাল লাগে জানো, বিকেলবেলা …

তপন সিংহ (Tapan Sinha) একজন বিখ্যাত ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র পরিচালক। তিনি এক বার বলেছিলেন, ‘‘এখন কী ভাল লাগে জানো, বিকেলবেলা একান্তে বসে শুধু ‘গীতবিতান’-এর পাতা উল্টে যেতে। বারান্দায় বসে গীতবিতানের গান গুনগুন করি। কোনওটায় সুর আসে, কোনওটায় আসে না । এখন যে রবীন্দ্রনাথই আমার আশ্রয়।’’ কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিদ্যায় স্নাতোকত্তর করার পর তিনি ১৯৪৬ সালে নিউ থিয়েটার্স স্টুডিওতে সহকারী শব্দগ্রহণকারী হিসাবে যোগ দেন। ২০০৯ সালে আজকের দিনে, ১৫ই জানুয়ারী তিনি অনন্তের পথে পাড়ি দেন। তার প্রথম ছবি অঙ্কুশ নারায়ণ গাঙ্গুলির গল্প সৈনিক অবলম্বনে নির্মিত, কেন্দ্রীয় চরিত্রে একটি হাতি ছিল। তপন সিংহের চতুর্থ ছবি রবীন্দ্রনাথের ছোটগল্প নিয়ে কাবুলিওয়ালা (১৯৫৭)। ছবিটি শ্রেষ্ঠ ভারতীয় ছবি হিসেবে রাষ্ট্রপতির স্বর্ণপদক এবং শ্রেষ্ঠ বাংলা ছবি হিসেবে রৌপ্যপদক পেল।

চলচ্চিত্র পরিচালক তপন সিংহের জন্ম ভারতের বীরভূম জেলার মুরারই থানার জাজিগ্রামে প্রসিদ্ধ সিংহ পরিবারে ২ অক্টোবর ১৯২৪ সালে। তাঁর বাবার নাম ত্রিদিবেশ সিংহ এবং মা প্রমীলা। তিনি ছিলেন ভাই-বোনের মধ্যে পঞ্চম। অভিনেত্রী অরুন্ধতী দেবী তাঁর পত্নী ছিলেন। পড়াশোনা করেছেন ভাগলপুর ও কলকাতায়। ১৯৫৮ সালে তপন সিংহ পরিচালিত লৌহ-কপাট জরাসন্ধের লেখা জেল কয়েদিদের জীবনের করুণ আলেখ্য।১৯৬১ সালে, ঝিন্দের বন্দি বাংলা সাহিত্যের সুপরিচিত সাহিত্যিক শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত। ১৯৬৪ সালে তপন সিংহ সুবোধ ঘোষের ছোটগল্প জতুগৃহ – এর চিত্র রূপ দেন। ১৯৬৭ সালে তপন সিংহ নির্মাণ করেন বনফুলের উপন্যাস অবলম্বনে হাটে বাজারে।

Tapan Sinha was one of the most prominent Indian film directors of his time forming a legendary quartet with Satyajit Ray
Tapan Sinha was one of the most prominent Indian film directors of his time forming a legendary quartet with Satyajit Ray

বেশ কিছু ছবি ছোটদের জন্য বানানো। ক্রমে তিনি বিশ্বপরিচিতি, দেশে ও বিদেশে বহু সম্মান ও পুরস্কার লাভ করতে থাকেন। ছোটদের জন্য তাঁর উল্লেখযোগ্য ছবি—সবুজ দ্বীপের রাজা (১৯৭৯), আজ কা রবিনহুড (১৯৮৭), আজব গাঁয়ের আজব কথা (১৯৯৯), অনোখা মোতি (২০০০) প্রভৃতি। তাঁর বেশির ভাগ ছবির মধ্যেই থাকত কোনো না কোনো সামাজিক ঘটনার আলোকপাত। ১৯৮০ সালে মনোজ মিত্রের লেখা নাটক “সাজানো বাগান” -অবলম্বনে তপন সিনহা ‘বাঞ্ছারামের বাগান’ ছবি বানান৷ তাতে বাঞ্ছারামের ভূমিকায় তাঁর অসাধারণ অভিনয়ের জন্য দর্শকদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন মনোজ মিত্র। ‘গল্প হলেও সত্যি’র (১৯৬৬) কথা বিশেষভাবে বলা যায়। ১৯৯৪ সালে তপন সিংহ পরিচালনা করেন হুইল চেয়ার। হুইল চেয়ারে রয়েছে প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধে অপরাজেয় মানুষের দুঃসাহসিক সংগ্রামের কাহিনী। শ্রেষ্ঠ ভারতীয় ছবির জন্য রাষ্ট্রপতির স্বর্ণপদক পেয়েছেন একাধিকবার, পেয়েছেন শ্রেষ্ঠ পরিচালকের পুরস্কার এবং দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারও। তাঁকে প্রণাম জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *