Unrest in Iran Causes 106 Death within One Week

Unrest in Iran: তপ্ত ইরানে ১০৬ জন বিক্ষোভকারী নিহত

কলকাতা

জ্বালানির দাম বাড়ার পর পরিস্থিতি খারাপ হয়েছে। দেশটির ২১টি শহরে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভ (Unrest in Iran) চলাকালে কমপক্ষে ১০৬ জন নিহত হয়েছেন।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সূত্রে জানা যাচ্ছে, ইরানে জ্বালানির দাম বাড়ার পর পরিস্থিতি খারাপ হয়েছে। গত সপ্তাহে দেশটির ২১টি শহরে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভ (Unrest in Iran) চলাকালে কমপক্ষে ১০৬ জন নিহত হয়েছেন। এই বিক্ষোভে নিহতের প্রকৃত সংখ্যা এর থেকেও বেশি বলে মনে করে সংগঠনটি। নিহতের সংখ্যা ২০০ পর্যন্ত হতে পারে বলেও জানা গেছে। ইরানি সরকার জানায়, কিছু ছোটখাটো ইস্যু থাকা সত্ত্বেও সবকিছু শান্ত আছে।

মানবাধিকার কমিশন এক বিবৃতিতে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বল প্রয়োগ না করতে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। ইরান সরকার হঠাৎ পেট্রলের দাম বৃদ্ধি এবং সবার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ পেট্রোল বরাদ্দ করার রেশন ব্যবস্থা কার্যকর করার ঘোষণার পর থেকে গত শুক্রবার থেকে তুমুল বিক্ষোভ শুরু হয়। এদিকে এই বিক্ষোভ অবসানের আহ্বান জানিয়েছে দেশটির ইসলামিক রেভোল্যুশনারি গার্ডস কর্পস। সশস্ত্র বাহিনী জানায়, ইরানের শত্রুরা আরেকটি মতভেদের বীজ বুনতে চাচ্ছে। দেশে যেকোনো ধরনের অস্থিতিশীলতা তৈরি করতে পারে এমন পদক্ষেপ শক্তভাবে মোকাবিলা করা হবে।

যদিও এই বিবৃতি নিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়াও জানায়নি তেহরান। হাতহতদের বিষয়ে এখনও কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়নি ইরান সরকার। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও জানান, “আপনাদের সঙ্গে আছে যুক্তরাষ্ট্র।” এছাড়া বিক্ষোভকারীদের ওপর প্রাণঘাতী শক্তিপ্রয়োগ ও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার ঘটনায় নিন্দা জানায় হোয়াইট হাউস। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই মন্তব্য ভুল বলে মন্তব্য করেছে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্বাস মুসাভি। পেট্রোল থেকে ভর্তুকি উঠিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর দেশটিতে পেট্রোলের দাম অন্তত শতকরা ৫০ ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কারণেই ইরানের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *