Urmila Matondkar Quits Congress and Sovan Baisakhi Not Willing to Stay in BJP

Urmila Matondkar: কংগ্রেস ছাড়লেন উর্মিলা মাতণ্ডকর

কলকাতা

বড্ড তাড়াতাড়ি মোহভঙ্গ। দেশের জাতীয় কংগ্রেস ছাড়লেন উর্মিলা মাতণ্ডকর (Urmila Matondkar)। মহারাষ্ট্র বিধানসভার আগে বড়সড় ধাক্কা খেল কংগ্রেস।

বড্ড তাড়াতাড়ি মোহভঙ্গ। দেশের জাতীয় কংগ্রেস ছাড়লেন উর্মিলা মাতণ্ডকর (Urmila Matondkar)। মহারাষ্ট্র বিধানসভার আগে বড়সড় ধাক্কা খেল কংগ্রেস। দল ছাড়লেন অভিনেত্রী তথা সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে পরাজিত কংগ্রেস প্রার্থী উর্মিলা মাতণ্ডকর।দলের মধ্যেকার “কায়েমি স্বার্থ” এবং “নিকৃষ্ট মানের দলীয় কোন্দল”কেই এ ব্যাপারে দায়ী করেছেন অভিনেত্রী । এ বছর লোকসভা ভোটে প্রথমবার মুম্বই উত্তর কেন্দ্র থেকে হেরে যান উর্মিলা। তিনি বলেছেন, “গত ১৬ই অগাস্ট মুম্বই কংগ্রেসের সভাপতি মিলিন্দ দেওরাকে দেওয়া চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বারবার আমার তরফ থেকে চেষ্টা করা সত্ত্বেও কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ না করার পরই আমার মাথায় প্রথমবার পদত্যাগের ভাবনা এসেছিল।”

দলের কাছে পদত্যাগপত্র দেওয়ার পরই উর্মিলা মাতণ্ডকর তাঁর চিঠি সংবাদমাধ্যমের কাছে প্রকাশ করেছেন । তিনি বলেন, “বারবার আমি প্রতিবাদ করা সত্ত্বেও দলের কেউ এ ব্যাপারে ক্ষমা চাননি। আমার চিঠিতে মুম্বই উত্তর লোকসভা কেন্দ্রে কংগ্রেসের খারাপ ফলের ফলের জন্য দায়ী কয়েকজনের নামের উল্লেখ করা ছিল, কিন্তু তাঁদের কাছ থেকে জবাব চাওয়ার বদলে, তাঁদের পুরস্কৃত করা হয়েছে। এটা স্পষ্ট যে মুম্বই কংগ্রেসের গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারীরা দলের ভাল করতে হয় অক্ষম, নয়ত তাঁরা এ ব্যাপারে আগ্রহী নন।”এবার তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ কিছুটা অন্ধকারে পৌছালো।

আর বিজেপিতে থাকতে চাইছেন না শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। শোভন চ্যাটার্জি ও বৈশাখী ব্যানার্জি বিজেপি ছাড়ছেন। বৈশাখীদেবী বলেন, ‘‌বিজেপিতে থাকা আর সম্ভব নয়। ঘোষণা শুধু সময়ের অপেক্ষা।’‌ বিজেপি নেতা জয় ব্যানার্জি রবিবার বলেছিলেন, ‘বৈশাখী রাজনৈতিকভাবে অনভিজ্ঞ। রাজ্য ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে বলছি, দয়া করে দেবশ্রী রায়কে দলে নিন। বাংলা প্রেমের জায়গা, পরকীয়ার জায়গা নয়। পরের স্বামীকে নিয়ে সব জায়গায় উনি ঘুরবেন, এটা বাংলার মানুষ মেনে নেবে না। তাই আমরা দেবশ্রী রায়কে স্বাগত জানাচ্ছি।’ শোভনবাবু জানান, ‘এক কথায় এটা অত্যন্ত নিম্নরুচির পরিচয়। এর তীব্র নিন্দা করি। ধিক্কার জানাই। বৈশাখী আমার বন্ধু এবং বন্ধু হিসেবেই সে আমার পাশে দাঁড়িয়েছে, এটা আমি অস্বীকার করি না। কিন্তু সেটাকে বিকৃত মানসিকতায় ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। বানরের হাতে তলোয়ার পড়ে গেলে যা হয়!‌’‌

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *