Village Police Protest in West Bengal

Village Police: মাছভাতেই শেষ ভিলেজ পুলিশের অভিযান

কলকাতা

মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে অনশন কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজ্যের ভিলেজ পুলিশ (Village Police) সংগঠনের খোঁজখবর নিতে শুরু করে পুলিশ।

রাজ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ – ভিলেজ পুলিশের। দীর্ঘ বঞ্চনা ও স্থায়ীকরণের দাবিতে এবার খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ির সামনে অনশনে বসতে চান ভিলেজ পুলিশদের একাংশ। আসলে ভিলেজ পুলিশদের (Village Police) এই কর্মসূচি ঘিরে রীতিমতো চিন্তায় পড়েছে কলকাতা পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে অনশন কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজ্যের ভিলেজ পুলিশ সংগঠনের খোঁজখবর নিতে শুরু করে পুলিশ। সেই ২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে ভিলেজ পুলিশ বাহিনী তৈরি করেছিলেন। এখন তাঁদের ৩১০ টাকা করে দৈনিক মজুরি দেওয়া হয়। আপাতত তাঁদের অস্থায়ী কর্মী হিসেবে দেখানো হচ্ছে। বছরে কোনও ছুটির ব্যবস্থা না থাকলেও বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা পান এরা। কিন্তু নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার সাত বছরের মাথায় এবার স্থায়ীকরণের দাবিতে ভিলেজ পুলিশরা পথে নামতে চেয়েছে।

কিন্তু অভিযানের পরীক্ষায় ফেল করলো ভিলেজ পুলিশরা। প্রতিটি থানায় তাদের এলাকার ভিলেজ পুলিশদের ডেকে নেওয়া হল। দুপুর পর্যন্ত বসিয়ে রেখে, কোথাও কোথাও দুপুরে ভাত-মাছের ঝোল খাইয়ে তাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হল। কিন্তু প্রাক পুজোয় থানার আদর যত্ন দেখানো হলো। আসলে দুপুরে থানায় ডেকে বসিয়ে রেখে ভিলেজ পুলিশদের কালীঘাট অভিযান থামিয়ে দিলো জেলা পুলিশ কর্তারা। কিন্তু আগামী অভিযান নিয়ে এবার তারা গোপনীয়তা বজায় রাখতে চাইছে। কারণ তাদের ছুটি দরকার। সঙ্গে নতুন বেতনক্রমের আবেদন করবে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। ভিলেজ পুলিশের একাংশের অভিযোগ, ৭ বছর হয়ে গেলেও তাঁদের একটি টাকাও বাড়ানো হয়নি। অথচ সিভিক ভলেন্টিয়ারদের বেতন বাড়িয়েছে প্রশাসন। ভিলেজ পুলিশদের অভিযোগ, তাঁরা চান অন্ততপক্ষে স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মাধ্যমে তাঁদের নিয়োগ করা হোক। স্থায়ীকরণ করা হোক।

কালীঘাটে গিয়ে আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে তাঁরা। সেই খবর আগাম পৌঁছে যায় গোয়েন্দা দপ্তরের হাতে। এরপরেই গতকাল বুধবার জেলার প্রতিটি থানায় ভিলেজ পুলিশদের ডেকে থানায় বসিয়ে রাখা হয়। দুপুরের দিকে পেট ভোরে মাছ ভাত খাইয়ে তাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেছেন। সমস্ত রকম চেষ্টা বিফলে যাওয়ার পর এবার মুখ্যমন্ত্রী বাড়ির সামনে অবস্থানে বসতে চলেছেন সিভিক পুলিশদের একাংশ। গোটা রাজ্যজুড়ে ইতিমধ্যেই ভিলেজ পুলিশদের অন্দরে শুরু হয়েছে জোরদার প্রচার। যদিও, ভিলেজ পুলিশদের অনশন কর্মসূচি ঘোষণা করা হলেও পুলিশ অনুমতি দেবে কিনা তা নিয়ে সংশয় আছেই। তবু সাম্প্রতিক রীতি অনুসারে তারা রাস্তায় নামতে চাইছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *