Sensors in all districts to warn lightning strikes in West Bengal

বজ্রপাতের সতর্কবার্তা দিতে সব জেলায় সেন্সর

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের খবর

কয়েক ঘণ্টাখানেক আগে রাজ্যের সর্বত্র বাজে পড়ার সতর্কবার্তা (Warn lightning strikes) পৌঁছে দেওয়া যাবে। আগামী এক বছরের মধ্যে এই ধরণের …

নিজস্ব সংবাদদাতা: গোটা রাজ্যেই এখন কম বেশি বৃষ্টি হচ্ছে। শ্রাবনের ধারা না থাকলেও নিম্নচাপের সাথে হাত মিলিয়েছে মেঘদূত। কিন্তু এখন বৃষ্টির সাথে বজ্রপাতের সম্পর্ক খুব বেশি। চোখের নিমেষে আগুনে পুড়ছে গাছ ও মারা যাচ্ছে মানুষ ও জন্তু। এই প্রাণহানির ঘটনা কমাতে নতুন প্রযুক্তির খোঁজ শুরু করেছে রাজ্য সরকার। এর সাহায্যে কয়েক ঘণ্টাখানেক আগে রাজ্যের সর্বত্র বাজে পড়ার সতর্কবার্তা (Warn lightning strikes) পৌঁছে দেওয়া যাবে। আগামী এক বছরের মধ্যে এই ধরণের প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু করতে চাইছে রাজ্য সরকার।

Sensors in all districts to warn lightning strikes in West Bengal
Sensors in all districts to warn lightning strikes in West Bengal

প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরকে পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিষয়টি খড়্গপুর আইআইটির কাছে পৌঁছেছে। ফলে রাজ্যের প্রতিটি জেলায় লাইটনিং সেন্সর ডিভাইস বসানোর উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। জানা যাচ্ছে, এই আধুনিক ডিভাইস ২৫ থেকে ৪০ কিলোমিটার এলাকার জন্য আগাম সতর্কবার্তা জানাতে পারবে। কমপক্ষে এক ঘণ্টা আগে সেখানকার মানুষ এই তথ্য জানতে পারবে। তাই এই ধরণের প্রযুক্তি, খুবই প্রয়োজন।

[ আরো পড়ুন ] রাজ্যে ১ কোটি উচ্চ ফলনশীল চারাগাছ বিলি

বর্ষায় মাঠে অনেক চাষি কাজ করেন। এবার থেকে প্রত্যেকেই পরিস্থিতি বুঝে দ্রুত নিরাপদ আশ্রয়ে পৌঁছতে পারবেন। ডাটা দেশে বাজে মৃত্যুতে এগিয়ে আছে ১০টি রাজ্য। এর মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের স্থান তৃতীয়। প্রতি বছর ১লা এপ্রিল থেকে ৩১শে জুলাই পর্যন্ত সময় সবচেয়ে বেশি বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে । গত বছরের এই চার মাসে বাংলায় ৫ লক্ষ ৩৯ হাজার ৬০৮টি বজ্রপাত হয়। এই বাজে পড়ে মারা গিয়েছিলেন ৫২ জন। আর চলতি বছরে এই সময়ে বজ্রাঘাতে পশ্চিমবঙ্গে মৃত্যু হয়েছে ৪০ জনের।

[ আরো পড়ুন ] ৪০ পার হলেই জায়গা নেই – Trinamool Youth Congress

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *