সুপ্রিমকোর্টে কাল শুনানি, সিবিআই-রাজ্য সম্মুখ সমরে

সুপ্রিমকোর্টে কাল শুনানি, সিবিআই-রাজ্য সম্মুখ সমরে

রাজ্যের খবর

রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআইয়ের তল্লাশি অভিযান, পুলিশের কর্মদক্ষতায় সিবিআই থানা-বন্দি|

ঘূর্ণবর্ত তৈরী ছিল| ব্রিগ্রেড – ঠাকুরনগরের পরেই চাপান-উতোর শুরু| লোকসভা নির্বাচনের আগে কৌশলী রাজনৈতিক যুদ্ধ| বিরোধী ঐক্যের নেত্রী বনাম মোদী|

গতকাল সিপিএম-এর ব্রিগ্রেড সমাবেশের পরেই ঘটনা শুরু হয়| রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআইয়ের তল্লাশি অভিযান, পুলিশের কর্মদক্ষতায় সিবিআই থানা-বন্দি| পুরানো সেই দিনের কথা – মুখ্যমন্ত্রী, প্রাক্তনী হয়ে রাস্তায় বসে গেলেন| মেয়র জায়গা করে নিলেন পাশে|

কিন্তু কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে রবিবার কী ঘটনা ঘটেছিল তার বিস্তারিত রিপোর্ট এবং ভিডিয়ো ফুটেজ নিয়ে দিল্লি গেলেন রাজ্যের দুই সিবিআই আধিকারিক। তাদের সাথে আছেন সিবিআইডি এসপি তথাগত বর্ধন ছাড়াও এসপি পদমর্যাদার আর এক আধিকারিক।আজ ভোরের বিমানেই তাঁরা দিল্লির উদ্দেশে রওনা হন।

জানা গেছে , রাজ্য পুলিশের দশ জন পুলিশ আধিকারিকের ভূমিকা নিয়ে রিপোর্টে পেশ করতে চলেছেন সিবিআই কর্তারা। এর মধ্যে বেশ কয়েক জন আইপিএসও রয়েছেন। শুধু দিল্লির সিবিআই অফিসেই নয়, এ দিন সুপ্রিম কোর্টেও সিপি-কাণ্ডের রিপোর্ট-ভিডিয়ো পেশ করে সিবিআই। এ বিষয়ে শুনানি আগামিকাল, মঙ্গলবার হবে বলে সুপ্রিম কোর্টের তরফে জানানো হয়েছে।

সিবিআই ও রাজ্য প্রশাসনের টানাপড়েন রবিবার সন্ধ্যা থেকে চরম আকার নেয়। বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার তদন্তে কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের বাড়িতে বসে কথা বলতে চেয়েছিলেন কেন্দ্রীয় সংস্থার তদন্তকারীরা। তাতে বাধা দেয় কলকাতা পুলিশ। সন্ধ্যায় নিজাম প্যালেসে সিবিআইয়ের আঞ্চলিক যুগ্ম অধিকর্তা পঙ্কজ শ্রীবাস্তবের সরকারি আবাসনও ঘিরে ফেলে কলকাতা পুলিশ। বিধাননগর পুলিশ বাহুবলে ঘিরে ফেলে সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে সিবিআই দফতরও।

এর পরেই রাতে দিল্লির সিবিআই কর্তাদের সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে পুরো বিষয়টি জানান রাজ্যের সিবিআই আধিকারিকরা।গভীর রাত পর্যন্ত চলে সেই জটিল ও গভীর কনফারেন্স।গোটা ঘটনাটি রবিবার রাতেই অন্তর্বর্তী সিবিআই প্রধান নাগেশ্বর রাওকেও জানানো হয়। এ দিকে, আজই নতুন সিবিআই অধিকর্তা হিসেবে দায়িত্ব নিতে চলেছেন ঋষিকুমার শুক্ল।

সিবিআইয়ের যুক্তি, এ দিন মনের খেয়ালে রাজীব কুমারের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়া হয়নি, তার প্রমাণ হিসাবে সোমবার সুপ্রিম কোর্টে নথি পেশ করে সিবিআই।এ দিন সকাল সাড় দশটা নাগাদ সুপ্রিম কোর্টে রিপোর্ট জমা দেয়ে সিবিআই। আসলে ওই কলকাতার পুলিশ কমিশনার তদন্তের অনেক তথ্য নষ্ট করেছেন, তার প্রমাণ দিতেও নির্দেশ দেন তিনি।

বোঝা যায়,অভিযোগ প্রমাণ হলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যদি রাজীব কুমার নির্দোষই হবেন, তাহলে এতো আড়াল করার চেষ্টা কেন? আবার অন্য দিকে, লক্ষ-কোটি টাকার তাবড় স্ক্যাম ছেড়ে কেন রাজিব কুমার? আমরা বরং চোখ রাখি, আমাদের তাকে মামলার জল কোন দিকে এগোয়|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *