AIMIM chief Asaduddin Owaisi ready to pile on Muslim votes in Bengal

বাংলার সংখ্যালঘু ভোট কাটতে ঘর গোছাচ্ছেন মিম ওয়েইসি!

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের খবর

বিজেপি ও বাংলায় নতুন দল ‘আসাদউদ্দিন ওয়েইসি’র ‘মিম’-এর (AIMIM chief Asaduddin Owaisi) বিরুদ্ধে সর্ব মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী।

নিজস্ব সংবাদদাতা: বাংলার রাজনৈতিক সমীকরণ স্পষ্ট হচ্ছে নির্বাচনের অনেকটা আগে। ধর্মীয় বিষয় প্রধান হয়ে উঠছে বিধানসভা নির্বাচনে। সব পক্ষই ঘর গোছাতে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে। পথে ও সভায় নেমে পড়েছে। কিন্তু সবার নজরে মিম। এই রাজনৈতিক দল মস্ত সমস্যায় ফেলে দিতে পারে যেকোনো দলকে। বিজেপি ও বাংলায় নতুন দল ‘আসাদউদ্দিন ওয়েইসি’র ‘মিম’-এর (AIMIM chief Asaduddin Owaisi) বিরুদ্ধে সর্ব মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। তিনি জানান, ‘বাংলায় সংখ্যালঘু ভোটে ভাগ বসাতে হায়দরাবাদ থেকে বিজেপি একটা পার্টিকে ভাড়া করে এনেছে। বিজেপি ওদের টাকা দেয়। ওরা ভোট ভাগাভাগী করে সব জায়গায়। হিন্দু ভোট বিজেপি নেবে, মুসলিম ভোট ওরা নেবে, আমি কি কাঁচকলা নেব?’

AIMIM chief Asaduddin Owaisi ready to pile on Muslim votes in Bengal
AIMIM chief Asaduddin Owaisi ready to pile on Muslim votes in Bengal

নীরব থাকেন নি মিম দলের শীর্ষ নেতা। আসাদউদ্দিন ওয়েইসিজানান, ‘আজও পর্যন্ত দেশে এমন কেউ জন্ম নেয়নি, যে আসাদউদ্দিন ওয়েইসিকে কিনে নেবে। তৃণমূল আগে নিজেদের ঘর ভালো করে সামলাক। মুসলিম ভোটাররা একেবারেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পত্তি না। ওনার অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। ওনার নিজের দলের থেকে, সবাই বিজেপিতে চলে যাচ্ছে। উনি আগে নিজের দল বাঁচাক। উনি অকারণ বিহারের ভোটারদের অসম্মান করেছেন।’ মিমের রাজ্য নেতৃত্বর সঙ্গে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের রণকৌশল নিয়ে বৈঠক করেছেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি।

[ আরো পড়ুন ] রাজ্যে কেন্দ্রীয় উপ মুখ্যনির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন

জানা যাচ্ছে, হায়দরাবাদে গত শনিবার এই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক হয়েছে। মিমের পশ্চিমবঙ্গের আহ্বায়ক সৈয়দ জামিরুল হাসানের নেতৃত্বে এই রাজ্য থেকে বাছাই করা একদল সেই দীর্ঘ বৈঠকে ছিলেন। ফলে গুছিয়ে নামতে চলেছে মিম (AIMIM)। বেশ কয়েকটি জেলাতে তারা প্রাথী দেবে। আশা করা যায়, বিহারের মতো কয়েকটা আসন দখল করতে পারে এই মিম। বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে বেশ ভালো ফল করেছে মিম। বিহারের যে সমস্ত অঞ্চলগুলোতে মিমের ভালো হয়েছে সেই অঞ্চলের বেশিরভাগটা বাংলা-বিহার সীমান্ত সংলগ্ন এলাকাতে।

[ আরো পড়ুন ] রাজ্যের ২৫ জন বিজেপি নেতার নিরাপত্তা ! পর্যালোচনা MHA’র

আর ভোট কাটাকুটির অংকে অনেকেই সমস্যায় পড়তে চলেছেন। নিশ্চিত মুসলিম ভোট এবার আর পাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। আর এই বিভক্ত ভোট সবচেয়ে সমস্যায় ফেলতে পারে তৃণমূল নেতৃত্বকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *