Congress party seeks more than 110 seats from left parties in Bengal assembly poll 2021

নির্বাচনে বামেদের কাছে ১১০ থেকে ১১৬টি আসন চায় কংগ্রেস

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের খবর

২০১৬ সালে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভার ২৯৪টি আসনে (মোট ২৯৫টি আসনের মধ্যে) বিধানসভা নির্বাচন (Bengal assembly poll 2021) …

নিজস্ব সংবাদদাতা: সামনের বঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন। প্রায় সব দলই নির্বাচনী লড়াইতে নেমেছে। বেশ জমে উঠেছে সভা ও সমিতির মেজাজ। সামনে থেকে দুই ফুলের তীব্রতা থাকলে পেছনেই আছে বাম-কংগ্রেস জোট। ২০১৬ সালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভার ২৯৪টি আসনে (মোট ২৯৫টি আসনের মধ্যে) বিধানসভা নির্বাচন (Bengal assembly poll 2021) আয়োজিত হয়। মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস এই নির্বাচনে পুনঃনির্বাচিত হয়। ১৯৬২ সালের পর এই প্রথম কোনো রাজনৈতিক দল কোনোরকম জোট না করে একক শক্তিতে ক্ষমতায় আসে। কিন্তু এবারের ছবি অনেকটাই বদলে গেছে। তবে জোটে আছে দুই প্রাচীন দল “হাত -হাতুড়ি”।

Congress party seeks more than 110 seats from left parties in Bengal assembly poll 2021
Congress party seeks more than 110 seats from left parties in Bengal assembly poll 2021

বাংলায় কংগ্রেসের হয়ে অধীর চৌধুরী সবটা দেখভাল করছেন। বামেদের পক্ষ থেকে বিমানবাবু সম্প্রতি আলোচনাতে বসেছেন। দিল্লি থেকে নির্দেশ এসে পৌঁছেছে বাংলার কংগ্রেস মহলে। পশ্চিমবঙ্গে ১১০ থেকে ১১৬টি আসন দাবির জানাচ্ছে কংগ্রেস নেতৃত্ব। পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেসকে বামেদের সাথে বিধানসভায় জোট চূড়ান্ত করতে নির্দেশ দিল কংগ্রেস হাইকমান্ড। বামেদের সাথে জোট গঠনের ক্ষেত্রে অযথা মূল্যবান সময় নষ্ট করতে চায় না এআইসিসি। আসলে জাতীয় রাজনীতির কথা ভেবেই জোট চূড়ান্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এআইসিসি। তবে দিল্লি থেকে বাংলায় বামেদের সঙ্গে জোট ‘চূড়ান্ত’ বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

[ আরো পড়ুন ] রাজ্যপালের পর আজ মহারাজ অমিত শাহের সাথে

কিন্তু আসন্ন নির্বাচনের প্রাকমুহূর্তে আসন ভাগাভাগি নিয়ে এখনো পর্যন্ত স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। ফলে কাজ অনেকটাই স্তিমিত হয়ে পড়ছে। আব্দুল মান্নান জানান, ‘‘নির্বাচনী জোট যখন এআইসিসি চূড়ান্ত করেছে, তখন বাকি বিষয়গুলি তাদের উপরে ছেড়ে দেওয়া উচিত। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে সেই সময়ের এআইসিসি সভাপতি রাহুল গান্ধী জোটের রফা করে দেওয়া সত্ত্বেও সমস্যা তৈরী হয়। রায়গঞ্জ ও মুর্শিদাবাদ আসন নিয়ে টানাপোড়েনের ফলে সেই জোট ভেঙে গিয়েছিল।”

সেই কারণেই বারের জোট গঠনে অনেক বেশি সতর্ক এআইসিসি। তাই রাজ্য নেতৃত্বের ১৪০-১৫০টি আসনের দাবিকে মানছে না তারা। প্রদেশ কংগ্রেসকে ১১০ থেকে ১১৬টি আসনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *