West Bengal govt imposes strict lockdown in increased containment zones from 9th July

পশ্চিমবঙ্গে কোথায় কোথায় আবার লকডাউন, জেনে নিন

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের খবর

মৃত্যুর হার কম হলেও সংক্রমণের হারকে নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না। ফলে পশ্চিমবাংলায় আবার নতুন করে লকডাউনের (Strict Lockdown) বিধি জারি …

নিজস্ব সংবাদদাতা: উদাসীনতা আর শিথিলতায় “আমরা করবো জয়” আটকে গেলো। অনিশ্চিত ভবিষ্যতের আতঙ্ক ছারদেওয়ালের মধ্যে প্রবেশ করেছে। সাধারণ মানুষ ও প্রশাসন অনেকটাই দিশাহারা হয়ে পড়েছে। কিন্তু পাল্লা দিয়ে বেড়েই চলেছে ভাইরাসের প্রসার। মৃত্যুর হার কম হলেও সংক্রমণের হারকে নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না। ফলে পশ্চিমবাংলায় আবার নতুন করে লকডাউনের (Strict Lockdown) বিধি জারি করা হলো।

কন্টেনমেন্ট এলাকার পরিধি বাড়িয়ে পুনরায় কড়া নিয়ন্ত্রণবিধি আনা হলো রাজ্যে। এক সরকারি নির্দেশিকা দিয়ে নবান্ন জানিয়েছে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে এই নতুন নিয়ন্ত্রণবিধি কার্যকর হবে।

West Bengal govt imposes strict lockdown in increased containment zones from 9th July
West Bengal govt imposes strict lockdown in increased containment zones from 9th July

উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা মিলে কন্টেনমেন্ট জোনের সংখ্যা ৩৫০-এর বেশি। উত্তর ২৪ পরগনায় কন্টেইনমেন্ট জোন আছে ২১৯টি। এর পাশে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় আছে ১৫৩টি। সংক্রমণ কমা ও বাড়ার উপর নির্ভর করবে কন্টেনমেন্ট জোনের সংখ্যা। দক্ষিণ ২৪ পরগনার মহেশতলা ও রাজপুর-সোনারপুর পুরসভা এলাকায় কন্টেনমেন্ট জোনের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এছাড়া মন্দিরবাজার, মগরাহাট, বিষ্ণুপুরের দুটি ব্লকে একাধিক কন্টেনমেন্ট জোন আছে।

[ আরো পড়ুন ] রিয়্যালিটি শো ও সিনেমার আউটডোরে ছাড়

অনেক বেশি সংক্রমণ বেড়েছে উত্তর ২৪ পরগনায়। বিধাননগর, দমদম, কামারহাটি, বরানগর, বনগাঁ, দেগঙ্গা, গাইঘাটা, হাসনাবাদ, হিঙ্গলগঞ্জ, মনাখাঁতে কন্টেইনমেন্ট জোন আছে। তালিকাতে নির্দিষ্ট করে বলে দেওয়া এলাকাতে কন্টেনমেন্ট জোন হচ্ছে। শুধু সেখানেই লকডাউন কার্যকর হবে।

[ আরো পড়ুন ] ধর্মতলায় হবে না ২১শের সভা – ভার্চুয়াল ভাষণ বুথে স্মরণ

দুই ২৪ পরগনা, কলকাতা, হাওড়া, হুগলি এবং মালদহে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে। এবার বাফার জ়োনকে কন্টেনমেন্ট এলাকার অন্তর্ভুক্ত করা হল। কলকাতায় করোনার সংক্রমণ রুখতে হটস্পট চিহ্নিত করতে পুলিসকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কলকাতা পুলিসের উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে। সংক্রমিত এলাকার বাজারগুলি একেবারে বন্ধ করার চিন্তা করছে প্রশাসন। উল্টোডাঙা, বেলেঘাটা, ফুলবাগান, পন্ডিতিয়া, আলিপুর, এলগিন রোড, বেহালা, ভবানীপুর-সহ যেই ৪৫টি জায়গাতে বেশি নজরদারি চলবে।

রাজ্য সরকারের কড়া নির্দেশ, কন্টেমেন্ট জোনগুলিতে বন্ধ থাকবে সকল সরকারি ও বেসরকারি অফিস। সেখানে একেবারেই চলাচল করবে না গাড়ি। শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবাগুলিকে ছাড় দেওয়া হয়েছে। কন্টেনমেন্টগুলিতে লকডাউন চলাকালীন বহুতলগুলিতে প্রবেশ-প্রস্থানের পথ আটকে দেওয়া হতে পারে। তবে জরুরি পরিষেবা ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের সরবরাহ দেখবে প্রশাসন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *