6 more airports privatisation in India for private players

দেশের আরও ছ’টি বিমানবন্দর বেসরকারি হাতে

ব্যবসা

দেশের আরও ছ’টি বিমানবন্দরকে বেসরকারি (Airports privatisation) হাতে তুলে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। সরকারি সূত্রে জানা যাচ্ছে, অমৃতসর, বারাণসী, …

নিজস্ব সংবাদদাতা: একের পর এক দায় মুক্তির অধ্যায় সামনে আসছে। কয়লা খনি, ট্রেন-স্টেশন থেকে বিমানবন্দর চলে যাচ্ছে শিল্পপতির ঝুলিতে। কেন্দ্রীয় সরকারের অনেক বিষয় আছে মাথা ঘামাবার জন্য। অস্ত্র কেনা থেকে গদী কেনা এখন ভাবনার প্রধান বিষয়। কোষাগারে টাকা ঢুকছে, থাকছে না বেতন ও পেনশনের লক্ষ-কোটির চিন্তা। দেশের আরও ছ’টি বিমানবন্দরকে বেসরকারি (Airports privatisation) হাতে তুলে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। সরকারি সূত্রে জানা যাচ্ছে, অমৃতসর, বারাণসী, ভুবনেশ্বর, ইন্দোর, রায়পুর ও ত্রিচি বিমানবন্দরকে বেসরকারি হাতে দেওয়া হবে।

Amritsar Airport
Amritsar Airport

এয়ারপোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়া এই মর্মে সুপারিশ করে কেন্দ্রের কাছে পাঠিয়েছিল। সেই ৬টি বিমানবন্দর বেসরকারি হাতে দেবার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে। এর আগে আমেদাবাদ, জয়পুর, ম্যাঙ্গালুরু, তিরুবনন্তপুরম, লক্ষ্ণৌ ও গুয়াহাটি বিমানবন্দরকে বেসরকারি পরিচালনায় তুলে দেবার সিদ্ধান্ত হয়। দরপত্র ডেকে ছ’টিই তুলে দেওয়া হয় আদানি গোষ্ঠীর নিরাপদ ভাণ্ডারে। গত বছর জুলাই মাসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা আমেদাবাদ, ম্যাঙ্গালুরু, লক্ষ্ণৌ বিমানবন্দর আদানি গোষ্ঠীকে লিজ দিয়ে দিয়েছে। আগামীতে রাস্তার দায়ও এড়াতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার।

[ আরও পড়ুন ] এবার স্টেশন বেসরকারি – ব্যাংকের সংখ্যা ১২ থেকে ৫

ভারতে সেই নব্বইয়ের দশকে দিল্লি ও মুম্বই দিয়ে বিমানবন্দর বেসরকারিকরণ শুরু হয়। তারপর বেঙ্গালুরু ও হায়দরাবাদ অভিভাবক বদলায়। গতবছর টেন্ডারে অংশ নিয়ে এই ছ’টি বিমানবন্দরই পায় আদানি গোষ্ঠী। এদের মধ্যে আমদাবাদ, লখনউ ও মেঙ্গালুরু বিমানবন্দরের ভার ৫০ বছরের জন্য তুলে দেওয়া হয়েছে তাদের হাতে। দুই পর্যায়ে মোট এই ১২টি বিমানবন্দর বেসরকারিকরণ হবে পিপিপি মডেলে। ফলে বিমান মন্ত্রকের থলিতে প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকা আস্তে চলেছে।

[ আরও পড়ুন ] ভারতে গুগলের ৭৫ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *