Leonardo DiCaprio Biography in Bengali

টাইটানিকের জ্যাক লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিওর জন্মদিন

বিনোদন

১৯৭৪ সালের ১১ই নভেম্বর সেই সন্তানের জন্ম হয়। যার পুরো নাম লিওনার্দো উইলহিল্ম ডিক্যাপ্রিও (Leonardo DiCaprio Biography)।

নিজস্ব সংবাদদাতা: হলিউডের এক প্রখ্যাত অভিনেতা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও। একাধিক সিনেমায় তিনি, নানা আশ্চর্য চরিত্রের মধ্যে নিজেকে ফুটিয়ে তুলেছেন। অন্তঃসত্ত্বা আর্মেলিন, ইতালির জাদুঘরে ‘লিওনার্দো দা ভিঞ্চি’-এর চিত্রকর্ম দেখছিলেন। সেই সময় প্রথম আর্মেলিন নিজের শরীরে সন্তানের নড়াচড়া অনুভব করেন। নিজের ভেতরে লালিত সত্তা, জানান দিতে থাকে অস্তিত্বের। সেই সময় আর্মেলিন, অনাগত সন্তানের নাম ‘লিওনার্দো’ রাখবেন বলে মনস্থির করেন। ক্যালিফোর্নিয়ায় ১৯৭৪ সালের ১১ই নভেম্বর সেই সন্তানের জন্ম হয়। যার পুরো নাম লিওনার্দো উইলহিল্ম ডিক্যাপ্রিও (Leonardo DiCaprio Biography)।

Leonardo DiCaprio Biography in Bengali

এই ডিক্যাপ্রিওর মা আর্মেলিন ইনডেনবার্কেন জার্মান ও বাবা জর্জ ক্যাপ্রিও ইতালির নাগরিক। বাবা একজন কমিক শিল্পী ও কমিক বই পরিবেশক ছিলেন। ক্যাপ্রিওর জন্মের কয়েক বছর পর বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ হয়। ছোটবেলায় তিনি বেশির ভাগ সময় মায়ের সঙ্গে লস অ্যাঞ্জেলেসে থেকেছেন। ছাত্র বয়সে ডিক্যাপ্রিও ডিপ্লোমা জেনারেল এডুকেশনাল ডেভলপমেন্ট অর্জন করেন। তবে মাত্র পাঁচ বছর বয়সে তার বিজ্ঞাপনচিত্রের মাধ্যমে অভিনয়ে হাতেখড়ি ঘটে ।

এক টেলিভিশনের ধারাবাহিকের সেট ভাঙার জন্য অভিনয় থেকে বাদ পড়েন। এরপর ১৪ বছর বয়সে পর্দায় আসেন টেলিভিশন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। ‘গ্যাংস অব নিউ ইয়র্ক’, ‘দ্য এভিয়েটর’, ‘দ্য ডিপার্টেড’, ‘শাটার আইল্যান্ড’, ‘উলফ অফ ওয়ালস্ট্রিট’ টাইটানিক প্রভৃতি তার দর্শক নন্দিত চলচ্চিত্র।

[ আরও পড়ুন ] প্রথম ভারতীয় অস্কার বিজয়ী শিল্পী ভানু আথাইয়া পরলোকে

ডিক্যাপ্রিওর চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় ১৯৯১ সালে। কমেডি বিজ্ঞান কল্পকাহিনী ‘ক্রিটারস ৩’ তে অভিনয় করেন। এখানে তিনি একজন ভূস্বামীর সৎ ছেলের ভূমিকায় অভিনয় করেন। ১৯৯২ সালে ক্যারিয়ারের প্রথম বড় সুযোগ আসে। পরিচালক রবার্ট ডি নিরো ‘দিজ বয়েজ লাইফ’ ছবির জন্য ৪০০ শিশুশিল্পী থেকে ক্যাপ্রিওকে বাছাই করেন। কিন্তু ক্যারিয়ারের মস্ত বাঁকটি ১৯৯৭ সালে। ‘টাইটানিক’ চলচ্চিত্রে জ্যাকের চরিত্রে অভিনয় করে ডিক্যাপ্রিও কোটি মানুষের হৃদয়ে প্রেমিক পুরুষ হিসেবে জায়গা করে নেন। পাঁচ বার একাডেমি পুরস্কার ও তিন বার বাফটা অ্যাওয়ার্ড’এর জন্য মনোনয়ন পাওয়া ও দশ বার গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন। ২০১৬ সালে লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওর হাতে ওঠে অস্কার। সুদর্শন ডিক্যাপ্রিও শুধু অভিনেতা, লেখক ও প্রযোজক নন। তিনি একজন প্রসিদ্ধ পরিবেশবাদী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *