American actor Eldred Gregory Peck biograhy

Gregory Peck: অভিনেতা গ্রেগরি পেকের প্রয়াণ দিবস

ইতিহাস বিনোদন

বিখ্যাত ‘রোমান হলিডে’র সেই তরুণ সাংবাদিক গ্রেগরি পেক (Gregory Peck)। ২০০৩ সালের ১২ই জুন ৮৭ বছর বয়সে তিনি পরলোক গমন করেন। ৬ ফুট ৩ …

একজন অভিনেতা (Gregory Peck) শিল্পের ধারাকে অন্য পর্যায়ে উন্নীত করেছিলেন। গোটা বিশ্ব মোহিত হয়ে তার অভিনয় প্রত্যক্ষ করেছে। রাজকীয় জীবনের একঘেয়েমিতে হাঁপিয়ে ওঠে এক রাজকন্যা। তাকে মুক্তির পথ দেখান এক তরুণ সাংবাদিক। বিদায় বেলায় রাজকুমারী জানায়, ‘আমি জানিনা কিভাবে বিদায় বলতে বলবো”। সেই দীপ্ত তরুণ বলেন, “চেষ্টা করো না।”

রোমান হলিডে:

বিখ্যাত ‘রোমান হলিডে’র সেই তরুণ সাংবাদিক গ্রেগরি পেক (Gregory Peck)। ২০০৩ সালের ১২ই জুন ৮৭ বছর বয়সে তিনি পরলোক গমন করেন। ৬ ফুট ৩ ইঞ্চি উচ্চতার ব্যতিক্রমী শিল্পী গ্রেগরি পেক। তাঁর অসাধারণ কণ্ঠ ও বাকভঙ্গিমা জয় করে নেয় দর্শকমন। শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পেয়েছেন অনেক সম্মাননা ও পুরস্কার।

Gregory Peck, Audrey Hepburn and Eddie Albert in Roman Holiday
Gregory Peck, Audrey Hepburn and Eddie Albert in Roman Holiday

গ্রেগরি পেকের জীবনী:

গ্রেগরি পেক ১৯১৬ সালের ৫ই এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন। সেটি ছিল ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান ডিয়েগো শহর। তার সম্পূর্ণ নাম এলড্রেড গ্রেগরি পেক। বাবা গ্রেগরি পার্ল পেক ছিলেন কেমিস্ট ও ফার্মাসিস্ট। মায়ের নাম ছিল বার্নিস মেরি। পেকের ছ’বছর বয়সে বাবা মায়ের বিবাহ-বিচ্ছেদ হয়। অন্যের কাছে কাটে তার শৈশব।

Gregory Peck at Young Age
Gregory Peck at Young Age

শিক্ষা ও থিয়েটার:

ক্যাথলিক মিলিটারি স্কুলে দশ বছর বয়সে ভর্তি হন তিনি। ১৪ বছর বয়সে পেক ভর্তি হন স্যান ডিয়েগো হাই স্কুলে। এরপর স্যান ডিয়েগো স্টেট ইউনিভার্সিটি ও বার্কলে ইউনিভার্সিটিতে পড়েন। এই সময় থেকেই তার অভিনয় যাত্রার শুরু। কিছু থিয়েটার কোর্স করেন সেসময়। একই সাথে তেল কোম্পানিতে ট্রাক ড্রাইভার হিসেবে কাজ করেন। পড়ার সাথে কাজ করতে হতো তাকে।

Actor Chhabi Biswas: অভিনেতা ছবি বিশ্বাস জীবনী – আরও জানতে ক্লিক করুন …

নাট্যশিক্ষক স্যানফোর্ড মেইসনার:

প্রতিভা দেখে প্রশিক্ষক তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যদলে নেন। তিনি পাঁচটি নাটকে অভিনয় করে প্রশংসা পান। অভিনয়শিল্পী হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলেন। প্রয়োজন বুঝে মঞ্চনাটকের পীঠস্থান নিউইয়র্ক আসেন। সেখানে বিখ্যাত নাট্যশিক্ষক স্যানফোর্ড মেইসনারের কাছে অভিনয় শেখেন। এখানে তাকে খাবারের বিনিময়ে কাজ করতে হতো। কখনও মাথা গোঁজার আশ্রয় মিলতো না।

চেনা ধারার বাইরে হিন্দি সিনেমাকে উর্বর করা মানুষটির নাম রাজ কাপুর – আরও জানতে ক্লিক করুন …

সিনেমায় অভিনয়:

ইউরোপে তখন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের হাওয়া। যুদ্ধের মধ্যেও পেক অভিনয়ে জনপ্রিয়তা পান সৈনিকদের মধ্যে। ব্রডওয়েতে তার সুখ্যাতি ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে। গ্রেগরি পেকের প্রথম ছবি ‘ডেইজ অব গ্লোরি’। এটি মুক্তি পায় ১৯৪৪ সালে। এর পর মুক্তি পায় ‘দ্য কিজ অব দ্য কিংডম’, ‘দ্য ইয়ারলিং’, ‘জেনটেলম্যান’স এ্যাগ্রিমেন্ট’ এবং ‘টুয়েলভ’ও ক্লক হাই’। ফলে অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসে সেরা অভিনেতার মনোনয়ন পান তিনি।

A scene from The Keys of the Kingdom
A scene from The Keys of the Kingdom

‘দ্য ইয়ারলিং’ ছবিতে কৃষক চরিত্রে অভিনয়ের জন্য গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার পান পেক। ‘স্পেল বাউন্ড’ ছবিতে গ্রেগরি পেকের বিপরীতে ছিলেন ইনগ্রিড বার্গম্যান। এই ছবিতে অভিনয়ের সময় তার প্রেমে পড়েছিলেন। ১৯৪২ সালে ২৬ বছর বয়সে পেক বিয়ে করেন গ্রেটা কুকোনেনকে। কিন্তু অসুখী দাম্পত্য শেষে ১৯৫৫ সালে ডিভোর্স হয়।

Gregory Peck and Ingrid Bergman in Spell Bound
Gregory Peck and Ingrid Bergman in Spell Bound

অস্কার জয়:

১৯৬২ সালে ‘টু কিল এ মকিংবার্ড’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য অস্কার জয় করেন তিনি। ‘ডুয়েল ইন দ্য সান’ ছবিতে এজন আবেগপ্রবণ, নিষ্ঠুর কাউবয়ের চরিত্রের অভিনয় প্রশংসা কুড়ায়। ১৯৫৩ সালে মুক্তি পায় ‘রোমান হলিডে’ সর্বকালের অন্যতম সেরা ছবি। এ ছবিতে অভিনয় করে অড্রে হেপবার্ন অস্কার পেয়েছিলেন। এই ছবিতে অভিনয়ের সুবাদে দুজনের গভীর বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে।

Jennifer Jones and Gregory Peck in Duel in the Sun
Jennifer Jones and Gregory Peck in Duel in the Sun

‘দ্য গানফাইটার’, ‘দ্য বিগ কান্ট্রি’, ‘মবি ডিক’, ‘দ্য গানস অব নাভারন’ ছবিগুলো তাকে জনপ্রিয়তা এনে দেয়। ২০০৩ সালে আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউট আ্যাটিকাস ফিঞ্চ চরিত্রকে শত বছরের সেরা চলচ্চিত্র নায়ক বলে অভিহিত করে। ১৯৬৮ সালে অ্যাকাডেমির ‘জিন হারশল্ট হিউম্যানিটেরিয়ান অ্যাওয়ার্ড’ পান।

Gregory Peck got Academy Award for To Kill a Mockingbird
Gregory Peck got Academy Award for To Kill a Mockingbird

১৯৬৯ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট লিন্ডেন জনসন তাকে ‘প্রেসিডেনশিয়াল মেডেল অব ফ্রিডম’ সম্মান জানান। ১৯৯৬ সালে বিশ্ব চলচ্চিত্রে অবদানের জন্য ক্রিস্টাল গ্লোব পুরস্কার পান। তিনি বেঁচে থাকবেন তার সৃষ্টির মধ্যে দিয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *