Henrik Ibsen one of the founders of modernism in theatre

Henrik Ibsen: নাট্যকার হেনরিক ইবসেনের জন্মদিন

ইতিহাস

হেনরিক যোহান ইবসেন (Henrik Ibsen) একজন স্বনামধন্য নরওয়েজীয় নাট্যকার। ইনি আধুনিক বাস্তবতাবাদী নাটকের সূত্রপাত করেছেন। তাকে সম্মান করে …

হেনরিক যোহান ইবসেন (Henrik Ibsen) একজন স্বনামধন্য নরওয়েজীয় নাট্যকার। ইনি আধুনিক বাস্তবতাবাদী নাটকের সূত্রপাত করেছেন। তাকে সম্মান করে বলা হয় আধুনিক নাটকের জনক। ইবসেন নরওয়ের সর্বকালের শ্রেষ্ঠ লেখক এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নাট্যকার হিসেবে আসীন। তিনি নরওয়ের জাতীয় প্রতীকে পরিণত হয়েছেন বলা যায়। নাট্যকার, কবি ও মঞ্চনাটক পরিচালক হেনরিক জোহান ইবসেন ১৮২৮ সালের ২০শে মার্চ, নরওয়ের স্কিয়েনের এক স্বনামধন্য পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার মা ‘মারিচেন মার্টিনে আলটেনবার্গ’ একজন চিত্রশিল্পী। তিনি থিয়েটারও ভালোবাসতেন। বাবা ‘নাড ইবসেন’ ছিলেন একজন সফল ব্যবসায়ী।

A Doll's House in 1879
A Doll’s House in 1879

ব্যবসায়ী বাবার ব্যবসা দেউলিয়া হয়ে যাবার পর সহায় সম্পত্তি হারিয়ে নরওয়ের ছোট জনপদ শিয়েনের উপকণ্ঠের পারিবারিক গ্রীষ্মকালীন অবকাশগৃহে তাদের পরিবার বসবাস শুরু করে। ১৮৩০ দশকে ইবসেনের বাবা কুড ইবসের আর্থিক ধস পরবর্তী কালে ইবসেনের জীবন ও কর্মে ব্যাপক প্রভাব ফেলে।পনের বছর বয়সে ইবসেন তার পরিবার ছেড়ে পড়ালেখার উদ্দেশে নরওয়ের আরেক শহর গ্রিমস্তাদে পাড়ি জমান; লক্ষ্য ছিল চিকিৎসা শাস্ত্রে উচ্চতর সনদ নেবেন। ভর্তি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হন। এরকম একটি সময়ে ১৮৪৯ সালের শরৎকালে নামে একটি কবিতা লেখেন ‘শরৎকালে’। পরের বছর ১৯৫০ সালে তিনি ক্যাটিলিন নাটক লেখার মাধ্যমে নাট্যকার হিসেবে আবির্ভূত হন।

গ্রিক বিজ্ঞানী ও দার্শনিক। তাকে আবার প্রাণীবিজ্ঞানের জনক বলা হয় – আরও জানতে ক্লিক করুন …

ইবসেন ১৮৫৮ সালে ক্রিস্টিয়ানিয়াতে আসেন এবং ক্রিস্টিয়ানিয়ার জাতীয় থিয়েটারের সৃজন পরিচালক নিযুক্ত হন। তিনি সুজানা থোরেনসেন নামীয় ভদ্রমহিলাকে বিয়ে করেন, যার গর্ভে তার একমাত্র সন্তান সিগার্ড ইবসেন জন্ম নেয়। এই দম্পতি খুবই অর্থকষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করেছেন এবং নরওয়ের জীবন নিয়ে ইবসেন খুব হতাশাগ্রস্ত ছিলেন। ১৮৬৪ সালে তিনি ক্রিস্টানিয়া ত্যাগ স্বেচ্ছা নির্বাসনে ইতালি চলে যান। তিনি এর পরের ২৭ বছর আর স্বদেশে ফিরে আসেননি। যখন ২৭ বছর পর তিনি দেশে ফিরেন, ততদিনে তিনি নাট্যকার হিসেবে খ্যাতির শীর্ষে আরোহণ করেছেন। ইবসেনের সামগ্রিক সৃষ্টিকর্মের মধ্যে ২৬টি নাটক এবং তিন শ কবিতার উল্লেখ পাওয়া যায়। এ ছাড়াও প্রায় তিন হাজার চিঠিপত্র এবং বেশকিছু চিত্রকর্ম উল্লেখযোগ্য। ১৯০৬সালের ২৩শে মে তিনি পরলোক গমন কেন। তার রচনা এখনো মানব জাতির চিন্তা-মনন ও বিবেকবোধকে সমৃদ্ধ করে।

বিশ্ব মাতৃ দিবস উদযাপনের সূত্রপাত ঘটান মার্কিন সমাজকর্মী জুলিয়া ওয়ার্টস – আরও জানতে ক্লিক করুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *