India will Overtake China Population within 8 Years

অনিয়ন্ত্রিত জন বিস্ফোরণ – আগামী আট বছরে চীনকে টপকে যাবে ভারত

ইতিহাস ভারতবর্ষ

আয়ুষ্কাল বৃদ্ধি এবং উর্বরতার মাত্রা কমে যাওয়ার কারণে বিশ্বে প্রবীণ মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এরপর জনসংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে।

আগামী ৮ বছরে চীনকে টপকে যাবে ভারত। ২০৫০ সালে বিশ্বের মোট জনসংখ্যা দাঁড়াবে ৯৭০ কোটি। আগামী ৩০ বছরের মধ্যে বিশ্বের জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাবে ২০০ কোটি। এই বৃদ্ধির ফলে ২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বে বর্তমান জনসংখ্যা ৭৭০ কোটি বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়াবে ৯৭০ কোটি।

শতকের শেষে, পৃথিবীর জনসংখ্যা দাঁড়াবে ১১০০ কোটি মতো।আগামী আট বছরের মধ্যে ভারত চীনকে টপকে পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশ হয়ে যাবে। রাষ্ট্রসংঘের সাম্প্রতিক রিপোর্টে এ কথাই জানাচ্ছে।

জন্মের হারের তুলনায় মানুষের গড় আয়ু আগের থেকে অনেকটা বেড়েছে। আয়ুষ্কাল বৃদ্ধি এবং উর্বরতার মাত্রা কমে যাওয়ার কারণে বিশ্বে প্রবীণ মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এরপর জনসংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। বলা হয়েছে, ২০৫০ সালে পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার বেশিরভাগেরই বাসস্থান হবে ভারত, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, কঙ্গো, ইথিওপিয়া, তানজানিয়া, ইন্দোনেশিয়া, মিশর ও আমেরিকায়।আফ্রিকা ও পাশ্ববর্তী এলাকায় ২০৫০ সালের মধ্যে জনসংখ্যা প্রায় ৯৯ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে।

জাপান ও চীনের পেছনে থাকা এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ ভারতে আগামী ২০ বছরে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা ৮৮ কোটি থেকে বেড়ে ১০৮ কোটিতে দাঁড়াবে।বিশ্বজুড়ে সন্তান জন্মদানের হার কমে যাবে। ১৯৯০ সালে যখন প্রতিজন নারীর সন্তান জন্ম দেয়ার গড় হার ৩.২। ২০১৯ সালে তা কমে দাঁড়িয়েছে ২.৫। ধারণা করা হচ্ছে এই গড় আরো কমে ২.২ তে দাঁড়াবে ২০৫০ সালে।

দ্রুত যেসব দেশে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেগুলো সবচেয়ে দরিদ্র। এতে দারিদ্র্য দূর করা, ভাল গুণগত মান অর্জন, ক্ষুধা পুষ্টিহীনতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ওপর বাড়টি চ্যালেঞ্জ যোগ হচ্ছে। এ ছাড়া গুণগত স্বাস্থ্য ও শিক্ষা নিশ্চিত করা থেকে যাচ্ছে পশ্চাতে।কিন্তু এই বিস্ফোরণ কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে, তা এখনও অজানা। ‌‌

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *