Ramakrishna Mission Foundation Day History

Ramakrishna Mission Foundation Day: রামকৃষ্ণ মিশনের প্রতিষ্ঠা দিবস

ইতিহাস

১৮৯৭ সালের ১লা মে রামকৃষ্ণ পরমহংসের প্রধান শিষ্য স্বামী বিবেকানন্দ এই মহান রামকৃষ্ণ মিশন প্রতিষ্ঠা (Ramakrishna Mission Foundation Day) করেন।

সেবা ও শিক্ষার এক অন্যতম প্রতিষ্ঠান রামকৃষ্ণ মিশন। বাংলা, ভারত ও বিশ্বের মাঝে ছড়িয়ে আছে এর স্বচ্ছ ধারা। এটি সম্পূর্ণ একটি জনকল্যাণমূলক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। সেই ১৮৯৭ সালের ১লা মে রামকৃষ্ণ পরমহংসের প্রধান শিষ্য স্বামী বিবেকানন্দ এই মহান রামকৃষ্ণ মিশন প্রতিষ্ঠা (Ramakrishna Mission Foundation Day)করেন। এই বৃহৎ জনহিতকর সংস্থা, স্বাস্থ্য পরিষেবা, প্রাকৃতিক দুর্যোগে ত্রাণকার্য, গ্রামোন্নয়ন, আদিবাসী কল্যাণ, বুনিয়াদি ও উচ্চশিক্ষা এবং সুস্থ্য সংস্কৃতির প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করেছে।

Disciples of Ramakrishna Paramhangshadev.
Disciples of Ramakrishna Paramhangshadev.

রামকৃষ্ণ মিশনের প্রতিষ্ঠাতা:

জ্ঞান ,ভক্তি ও শুদ্ধ বুদ্ধির বিকাশের মাধ্যমে ভারতবর্ষ তথা সমগ্র বিশ্বের মানবজাতির কল্যান সাধন সম্ভব। এর এতে স্বাস্থ্য ও শিক্ষার প্রসার ,আধ্যাত্মিক মার্গ দর্শন ও বিশ্বপ্রেম জাগরনে রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের ভূমিকা অনস্বীকার্য। শ্রীরামকৃষ্ণের প্রধান শিষ্য স্বামী বিবেকানন্দের মস্তিষ্কপ্রসূত রামকৃষ্ণ মিশনের পরিসীমা ভারতবর্ষ সহ সমগ্র বিশ্বের আঠারোটি দেশে। ১৮৮৬ সালে পরমহংসদেব নিজে শ্রীরামকৃষ্ণ ধর্মমত বা বেদান্ত জ্ঞানের প্রসার ও ব্যবহারিক প্রয়োগের মাধ্যমে জীবের মুক্তির উপায় নির্ধারণে এবং সাধনা-সিদ্ধির মার্গ দর্শনের উদ্দেশ্যে স্থাপন করেন রামকৃষ্ণ মঠ ।

লেনিনের বিষয়ে এমন অনেক তথ্য যা এখনো জনমহলে প্রচারিত নয় – আরও জানতে ক্লিক করুন …

রামকৃষ্ণ সংঘ কি ?

স্বামী বিবেকানন্দ কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত ধর্মীয় ও সামাজিক রামকৃষ্ণ আন্দোলনের কাজকর্ম পরিচালনার জন্য দুটি প্রধান সংগঠন হল রামকৃষ্ণ মঠ ও রামকৃষ্ণ মিশন। এই দুটিকে রামকৃষ্ণ সংঘও বলা হয়। ২০১৮ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী সারা বিশ্বে রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের ২০১ টি শাখা রয়েছে যার মধ্যে ভারতবর্ষে ১৫২টি ,বাংলাদেশে ১৫টি ,আমেরিকায় ১৪টি রাশিয়ায় ২টি এবং আরও ১৫ টি দেশে ১টি করে শাখা রয়েছে। মিশনের ৭৪৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুই লক্ষাধিক শিক্ষার্থী বিভিন্ন শাখায় শিক্ষালাভ করছে। গঙ্গার ধারে অবস্থিত বেলুড় মঠ ও মিশন হাজার হাজার পুণ্যার্থীর পবিত্র তীর্থক্ষেত্র।

হিটলারের জীবনের কিছু গোপন তথ্য – আরও জানতে ক্লিক করুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *