Babesiosis outbreak in Gir forest kills 23 lions

গির অরণ্যে মারা গেল ২৩টি সিংহ

ভারতবর্ষ ভ্রমণ

জঙ্গলের রোগ বেবেসিওসিস হানা দিল সংরক্ষিত বনভূমিতে (Gir forest)। মারাত্মক এই রোগে বছরের একটি বিশেষ সময় জঙ্গলে প্রচুর সংখ্যক প্রাণী মারা যায়।

লকডাউনে দূষণ কমেছে – বেড়েছে সবুজের সমারোহ। বনের মাঝে ফিরে এসেছে সজীবতা। কিন্তু ব্যতিক্রমের তালিকায় পৌছালো দেশের গির অরণ্য। সিংহের অবারিত ক্ষেত্রে দেখা দিয়েছে মৃত্যুর ছায়া। জঙ্গলের রোগ বেবেসিওসিস হানা দিল সংরক্ষিত বনভূমিতে। মারাত্মক এই রোগে বছরের একটি বিশেষ সময় জঙ্গলে প্রচুর সংখ্যক প্রাণী মারা যায়। এই রোগ হানা দিল আমাদের গির অরণ্যে (Gir forest)। লকডাউনে বেবেসিওসিসে আক্রান্ত হয়ে গির অরণ্যের ২৩টি সিংহ মারা গেল। একসঙ্গে এতগুলি এশিয়াটিক লায়ন মারা যাওয়ায় বনকর্মীরা খুব হতাশ।

করবেট জাতীয় টাইগার রিজার্ভআরও জানতে ক্লিক করুন …

গির কর্তৃপক্ষের দাবি:

তবে গির কর্তৃপক্ষের দাবি, ২৩টি সিংহের মধ্যে পাঁচটি সিংহ নিজেদের মধ্যে লড়াই করে বা বয়সজনিত কারণে মারা গিয়েছে। বিতর্ক দানা বাঁধতে শুরু করেছে। জুনাগড়ের চিফ কনজারভেটর অফ ফরেস্ট জানান, পূর্ব গির অরণ্যের ২৪টি সিংহ কিছু পশুকে খাওয়ার পরেই বেবেসিওসিস রোগে আক্রান্ত হয়। সমস্যা বুঝতে পাড়ার পর, সিংহগুলিকে যশধর অ্যানিমাল ট্রিটমেন্ট সেন্টারে ভর্তি করা হয়। সেখানে ৬টি সিংহকে অ্যান্টিবডির সাহায্যে সুস্থ করে তোলা সম্ভব হলেও বাকিদের বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

খাবার দেওয়া হচ্ছে না পাকিস্তানের হিন্দু-খ্রিস্টানদের – আরও জানতে ক্লিক করুন …

সিডিভি ভ্যাকসিন:

এই রোগ যেকোনো সময়েই বিভিন্ন পশুর শরীরে প্রবেশ করতে পারে। এই অদ্ভুত রোগের জন্য গবাদি পশু থেকে পোষা কুকুর, বন্যপ্রাণী যে কোনও পশুই আক্রান্ত হতে পারে। সাধারণত দেখা যায়, এই রোগে পশুদের শরীরে ক্রমশ শুকিয়ে যেতে থাকে খাদ্যরস। আর তার সাথে কমতে থাকে লোহিত রক্তকণিকা। এরপর ধীরে ধীরে এই কণিকা গুলি নষ্ট হতে থাকে।যার ফলে পশুর শরীর ক্রমশ ঝিমিয়ে পড়তে থাকে। ২ বছর আগে আমেরিকা থেকে সিডিভি ভ্যাকসিন নিয়ে এসে গির জাতীয় উদ্যানের সিংহকে দেওয়া হয়। অথচ দুবছর বাদে আবার ফিরে এল সেই মারণ রোগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *