Central Helath Ministry Declares 170 Corona Hotspots in India Including 4 in West Bengal

Corona Hotspots in India: কেন্দ্রের তালিকায় ১৭০টি ‘হটস্পট’

ভারতবর্ষ

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক দেশের ১৭০টি জেলাকে COVID-19 হটস্পট (Corona Hotspots in India) হিসেবে শনাক্ত করেছে। ওই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে হটস্পটের …

প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় পর্বের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ৩রা মে পর্যন্ত দেশজুড়ে চলবে লকডাউন। কিছু কিছু ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ নরম করা হলেও, ভাইরাস মোকাবিলায় আলাদা ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক দেশের ১৭০টি জেলাকে COVID-19 হটস্পট (Corona Hotspots in India) হিসেবে শনাক্ত করেছে। ওই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে হটস্পটের তালিকা প্রকাশ করা হল। সেই তালিকায় রয়েছে বাংলার চার জেলা। সেই সঙ্গে ক্লাস্টার এলাকার মধ্যে রাখা হয়েছে আরও আটটি জেলাকে। লকডাউনের শর্ত শুধু কঠোরভাবে পালন করলে হবে না, এ বার নতুন কৌশলে সংক্রমণ মোকাবিলায় ঝাঁপাতে হবে।

Central Health Ministry Declares 170 Corona Hotspots in India Including 4 in West Bengal
Central Health Ministry Declares 170 Corona Hotspots in India Including 4 in West Bengal

এই মুহূর্তে দেশের ১৭০টি জেলায় সংক্রমণের হার খুব বেশি বলে সেগুলিকে ‘হটস্পট’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সংক্রমণের খবর এসেছে কিন্তু ‘হটস্পট’ নয়, এমন জেলার সংখ্যা ২০৭টি। পশ্চিমবঙ্গের ৮টি জেলা এই তালিকায় পড়ছে। তবে হোয়াইট জ়োন হিসেবে চিহ্নিত এই ২০৭টি জেলাগুলিতেও আগামী দিনে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কাকে সরিয়ে দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় মন্ত্রক। বাকি ৬৪০ জেলাগুলিকে ‘গ্রিন জ়োন’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে কেন্দ্র। পশ্চিমবঙ্গের চারটি জেলা রয়েছে। সেগুলি হল- ১) কলকাতা, ২) হাও়়ড়া, ৩) পূর্ব মেদিনীপুর, ৪) উত্তর চব্বিশ পরগণা।

চীনের বিমান নামল আসামে – আরও জানতে ক্লিক করুন …

করোনাতে আক্তান্ত কিন্তু হটস্পট নয়,এমন ৮টি জেলা হল:- ১) কালিম্পং,২) জলপাইগুড়ি
৩) হুগলি, ৪) নদিয়া, ৫) পশ্চিম বর্ধমান, ৬) পশ্চিম মেদিনীপুর, ৭) দক্ষিণ ২৪ পরগণা, ৮)দার্জিলিং। দেশের সমস্ত রাজ্যের মুখ্যসচিব, স্বাস্থ্যসচিব, স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন ক্যাবিনেট সচিব রাজীব গৌবা। স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, কোনও হটস্পট এলাকা থেকে যদি টানা ২৮ দিন নতুন কোনও সংক্রমণের খবর না-আসে, তা হলেই সেটিকে ‘গ্রিন জ়োন’ হিসেবে ঘোষণা করা যাবে। আসলে ‘ক্লাস্টার’ বা সংক্রমণের ভরকেন্দ্রগুলিকে গণ্ডিতে বাঁধায় বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি ‘ক্লাস্টার’-এ ঢোকার ও বার হওয়ার আলাদা পথ তৈরি করতে বলা হয়েছে।

পাকিস্তানেও রোষের মুখে তবলিঘি জামাত – আরও জানতে ক্লিক করুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *