FIR against 5 people including Baba Ramdev on Coronil trail case

বাবা রামদেব-সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের

ভারতবর্ষ

ভারতীয় যোগের নবপুরুষ (Baba Ramdev) করোনার ওষুধ বার করেছেন! তিনি পৃথিবী অগণিত নামি-দামি বিজ্ঞানীকে পেছনে ফেলে দিয়েছেন! কিন্তু এবার পথ …

নিজস্ব সংবাদদাতা: ব্যবসায়ী যোগগুরু বিপাকে পড়েছেন। ভারতীয় যোগের নবপুরুষ (Baba Ramdev) করোনার ওষুধ বার করেছেন! তিনি পৃথিবী অগণিত নামি-দামি বিজ্ঞানীকে পেছনে ফেলে দিয়েছেন! কিন্তু এবার পথ পিছলে গেলো। আইনি জটিলতায় পড়তে চলেছেন বাবা রামদেব ৷ সম্পূর্ণ আর্য়ুবেদিক পদ্ধতিতে করোনার অব্যর্থ ওষুধ আনার পরেই তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে চলেছে রাজস্থানের অশোক গেহলট সরকার ৷

রাজস্থান সরকার জানাচ্ছে, সরকারের অনুমতি ছাড়া রামদেব করোনা রোগীদের উপর ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়েছেন। এটা সম্পূর্ণ প্রতারণা বলে উল্লেখ করে যোগগুরুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে

FIR against 5 people including Baba Ramdev on Coronil trail case
FIR against 5 people including Baba Ramdev on Coronil trail case

জয়পুরের জ্যোতিনগর থানায়, বাবা রামদেব, আচার্য বালকৃষ্ণ, বিজ্ঞানী অনুরাগ বারষ্ণে, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্স-এর চেয়ারম্যান বলবীর সিংহ তোমর এবং ডিরেক্টর অনুরাগ তোমরের বিরুদ্ধে এই FIR আনা হয়েছে। জ্যোতিনগর থানার স্টেশন হাউস অফিসার, এই এফআইআরের সত্যতা জানিয়েছেন। সাহসী ও প্রয়োযনীয় সেই এফআইআরে বলা হয়েছে, বাবা রামদেব-সহ মোট ৫ জন ‘করোনিল’ নিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন।

[ আরো পড়ুন ] বেড়েছে সংক্রমণ – করোনা নাশে পতঞ্জলির ‘করোনিল’

পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, ওই ৫ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণা (৪২০ ধারা)-সহ বেশ কয়েকটি ধারায় মামলা আনা হয়েছে। জয়পুরের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স, রামদেবের আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরির কাজে সাহায্য করেছে। ওই সংস্থার ডিরেক্টর ডাঃ অনুরাগ তোমার জানান, জয়পুর নিমসে ৩০০র বেশি করোনা রোগী ভরতি ছিল ৷ তাদের কয়েকজনের উপর ওষুধের পরীক্ষা চালানো হয়।

[ আরো পড়ুন ] “হু”-এর ২০০ কোটি করোনা প্রতিষেধক8

সেই পরীক্ষা ১০০ শতাংশ সফল হয়েছে। সেখানে ৬৯ শতাংশ রোগী মাত্র ৩ দিনে সম্পূর্ণ সেরে উঠেছে। কয়েক ’দিন আগে, একই অভিযোগ এনে বিহারের এক আদালতে রামদেব এবং বালকৃষ্ণের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *