Flt Lt Bhawana Kanth Becomes First Indian Woman Fighter Pilot

প্রথমবার কোনও ভারতীয় মহিলা যুদ্ধবিমান চালানোর দায়িত্ব পেলেন৷

ভারতবর্ষ

Flt Lt Bhawana Kanth Becomes First Indian Woman Fighter Pilot

পিলেটাস পিসি-৭ টারবোপ্রপস, কিরণ ও হক জেট ট্রেনার্সের মতো এয়ারক্রাফটগুলিতে সহজেই সফর করেছেন ভাবনা।

ভারতীয় বায়ুসেনার যুদ্ধবিমানের প্রশিক্ষণ শেষ৷ এবার মহিলা হিসাবে একা হাতেই যুদ্ধবিমান চালাবেন এরা৷ এই ব্যতিক্রমী মহিলারা হলেন ভাবনা কান্তে,অবনী চতুর্বেদী এবং মোহানা সিং|আপাতত বিকানেরেই দায়িত্ব সামলাবেন ভাবনা ৷ এই প্রথমবার কোনও ভারতীয় মহিলা যুদ্ধবিমান চালানোর দায়িত্ব পেলেন ৷

পিলেটাস পিসি-৭ টারবোপ্রপস, কিরণ ও হক জেট ট্রেনার্সের মতো এয়ারক্রাফটগুলিতে সহজেই সফর করেছেন ভাবনা। বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গতিবেগের অবতরণ ও টেক-অফের ক্ষমতাসম্পন্ন ‘বাইসনস’ চালানোরও প্রশিক্ষণ নেন তিনি।

Flt Lt Bhawana Kanth Becomes First Indian Woman Fighter Pilot
Flt Lt Bhawana Kanth Becomes First Indian Woman Fighter Pilot

১৩ লক্ষ সদস্যের এই বাহিনীতে মোট অফিসারের সংখ্যা ৫৯ হাজার ৪০০-র কাছাকাছি৷ সেখানে বায়ুসেনা, স্থলসেনা ও নৌবাহিনীতে মহিলা অফিসারের সংখ্যা যথাক্রমে মাত্র ১,৩৫০, ১,৩০০ ও ৪৫০ জনের মতো৷

Flt Lt Bhawana Kanth Becomes First Indian Woman Fighter Pilot
Flt Lt Bhawana Kanth Becomes First Indian Woman Fighter Pilot

স্নাতক ভাবনা, আকাশ থেকে আকাশপথে এবং আকাশ থেকে স্থলে যুদ্ধের জন্য তাঁদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। দিনের বেলার পাশাপাশি চাঁদের আলোয় বিমান চালানোর প্রশিক্ষণও নেন তাঁরা৷ এমনকী অমাবস্যার রাতেও যুদ্ধবিমান চালান তিনি। প্রশিক্ষণ শেষের পর বুধবারই ভাবনা কান্তের হাতে যুদ্ধবিমান চালানোর দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় ৷

আপাতত বিকানেরে দায়িত্ব সামলাবেন তিনি৷ বায়ুসেনার তরফে এক আধিকারিক জানান, ‘গত সোমবার জামনগর বিমানঘাঁটি থেকে একাই একটি মিগ-২১ বিমান ওড়ান তিনি। এর আগে বায়ুসেনার কোনও মহিলা পাইলট একা কোনও যুদ্ধবিমান চালাননি।’

ভারতীয় বায়ুসেনা প্রধান অরূপ রাহা নারীদিবস উপলক্ষে ‘উইমেন ইন আর্মড মেডিক্যাল কর্পস’ শীর্ষক এক সেমিনারে তিনি বলেন, ‘১৯৯১ সাল থেকেই সেনায় মহিলা পাইলট নিয়োগ শুরু হয়েছিল, তবে শুধুমাত্র হেলিকপ্টার ও পরিবহণ বিমানের কাজের জন্য ৷

এ বার ফাইটার জেটের চালক হিসেবে মহিলাদের নিয়োগের জন্য আইএএফের প্রস্তাবকে অনুমোদন করার জন্য প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকরকে ধন্যবাদ৷ আপাতত ৩ জন মহিলা শিক্ষানবিসই যুদ্ধবিমান বাহিনীতে স্বেচ্ছায় যোগ দিতে রাজি হয়েছেন৷’ সামনের পথ নিশ্চই দক্ষতার সাথে সামলাবেন তাঁরা|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *