Maa Annapurna idol returning to Varanasi from Canada after 100 years

কানাডা ফেরাচ্ছে ১০০ বছর আগে বারাণসী ঘাটের মূর্তি

ভারতবর্ষ

এতদিন পর সেই অমূল্য বিগ্রহ ভারতকে ফেরত (Maa Annapurna idol returning) দিচ্ছে কানাডা সরকার। ঐতিহাসিক ভুল হিসাবে ব্যাখ্যা করে …

নিজস্ব সংবাদদাতা: ভারতের নানা রাজ্যে ছড়িয়ে আছে অগণিত প্রত্মতাত্বিক নিদর্শন। বহু প্রাচীন ইতিহাসে সেগুলি সমৃদ্ধ। এরমধ্যে বেশকিছু দুর্লভ মূর্তি চুরি হয়েছে।
আজ থেকে প্রায় ১০০ বছর আগে বারাণসীর মন্দির থেকে চুরি গিয়েছিল দেবী অন্নপূর্ণার বিগ্রহ। নানা হাত বদল ধর সেটি পৌঁছায় কানাডার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে। এতদিন পর সেই অমূল্য বিগ্রহ ভারতকে ফেরত (Maa Annapurna idol returning) দিচ্ছে কানাডা সরকার। ঐতিহাসিক ভুল হিসাবে ব্যাখ্যা করে দুই দেশের সম্পর্কের কথা ভেবেই এই পদক্ষেপ। এই দেবী মূর্তি এতদিন রেজিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যাকেঞ্জি আর্ট গ্যালারিতে স্থান পেয়েছিল।

Maa Annapurna idol returning to Varanasi from Canada after 100 years
Maa Annapurna idol returning to Varanasi from Canada after 100 years

সেখানে নর্ম্যান ম্যাকেঞ্জির সংগ্রহে ছিল সেই বিরল মূর্তি। শিল্পী দিব্যা মেহরা প্রথম এই বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। গ্যালারি কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যাচ্ছে , অন্তত ১০০ বছর আগে এই মূর্তি ভারত থেকে চুরি যায়। আর্ট গ্যালারিতে মূর্তিটি নজরে আসে শিল্পী দিব্যা মেহরার। তিনি সেই মূর্তিটি নিয়ে পড়াশোনা করেন। জানতে পারেন, ১৯১৩ সালে ম্যাকেঞ্জি ভারত সফরের সময় মূর্তিটিকে বারাণসীর ঘাটে দেখেন। এরপর এক ব্যক্তি, তাকে সেই মূর্তিটি চুরি করে এনে দেন। তখনদিব্যা মেহরা, কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি সম্পর্কে জানান।

[ আরও পড়ুন ]  গরুর TRP বেড়েই চলেছে – ‘মহেশ’ এখন ভোট একাউন্টে

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মূর্তিটি সম্পূর্ণ ভাবে ভারতের। দ্রুত এই দেবমূর্তিটি ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। বিশ্ব হেরিটেজ সপ্তাহে এই মূর্তিটি কানাডিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রদর্শিত করা হবে। গত ১৯ থেকে ২৫শে নভেম্বর মাসে পালিত হচ্ছে বিশ্ব হেরিটেজ দিবস। সম্প্রতি চার দশক আগে চুরি যাওয়া রাম-সীতা-লক্ষ্মণের মূর্তি ফিরিয়ে দিয়েছে ব্রিটেন। তিনটি ব্রোঞ্চের মূর্তি ব্রিটেন থেকে দিল্লির প্রত্নতাত্বিক বিভাগের সদর দফতরে নিয়ে আসা হয়েছে। আগামীতে আরও মূর্তির দেশে ফেরার সম্ভাবনা তৈরী হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *