Modi govt allows Rs 12000 crore for sanitary napkins or pads for women in India

মোদির ১২ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প – ১ টাকায় ন্যাপকিন

ভারতবর্ষ

প্রধানমন্ত্রীর জনৌষধি কেন্দ্রগুলি থেকে মাত্র ১ টাকাতে মিলবে স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary napkins)। এই প্রকল্পকে এগিয়ে নিয়ে যেতে বছরে ১২ হাজার …

নিজস্ব সংবাদদাতা: গত স্বাধীনতা দিবসে মোদির ভাষণে গুরুত্ব পেয়েছে নারীর ক্ষমতায়ন। মেয়েদের বিয়ের ন্যুনতম বয়স নিয়ে পুনর্বিবেচনাই সামনে আসে। কিন্তু মেনস্ট্রুয়েশন অর্থাৎ ঋতুস্রাবের মতন বিষয় এনেছিলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। সেই লক্ষ্যে এগিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রীর জনৌষধি কেন্দ্রগুলি থেকে মাত্র ১ টাকাতে মিলবে স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary napkins)। এই প্রকল্পকে এগিয়ে নিয়ে যেতে বছরে ১২ হাজার কোটি টাকার নতুন প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

Modi govt allows Rs 12000 crore for sanitary napkins or pads for women in India
Modi govt allows Rs 12000 crore for sanitary napkins or pads for women in India

১৫ই অগাস্ট প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কেন্দ্র দেশের মেয়েদের স্বাস্থ্যের বিষয়ে উদ্বিগ্ন ছিল। সেই কারণে ৬,০০০ জনৌষধি কেন্দ্রের মাধ্যমে দেশের প্রায় ৫ কোটি মহিলার হাতে মাত্র ১টাকার বিনিময়ে তুলে দেওয়া হবে স্যানিটারি প্যাড। স্যানিটারি প্যাড আরও সস্তায় তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত বড় ব্যাপার। এই বিষয়ে কথা বলার জন্য যেটা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন সাহস, আমাদের এমনই একজন মানুষ প্রয়োজন।”

[ আরও পড়ুন ] ব্রণের সমস্যা ও সহজ প্রতিকার, ঘরোয়া পদ্ধতিতেই পান মুক্তি

মহিলাদের ঋতুস্রাব নিয়ে এখনও নানা ছুঁৎমার্গ আছে। ফলে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য প্রশংসা কুড়িয়েছিল সর্বত্র। ইতিমধ্যে স্যানিটারি ন্যাপকিনের সুবিধা পেয়েছেন পাঁচ কোটি মহিলা। নারী স্বাস্থ্য উন্নয়ন প্রকল্পে সুবিধা ব্র্যান্ড চালু হয়েছিল ২০১৮ সালে। তখন আড়াই টাকায় স্যানিটারি প্যাড পাওয়া যেত। গত বছর তা কমিয়ে ১ টাকা করে দেওয়া হয়। এই ১ টাকায় স্যানিটারি প্যাডের সুবিধা পাচ্ছেন ও পাবেন দেশের অগণিত মহিলারা।

[ আরও পড়ুন ] এই তীব্র গরম থেকে বাঁচার উপায় জেনে নেওয়া যাক

এই প্যাড একেবারেই পরিবেশবান্ধব অক্সো-বায়োডিগ্রেডেবল হবে। আর ব্যবহারের পরে পরিবেশ দূষণ ঘটাবে না। বাতাসের অক্সিজেনের সংস্পর্শে এলে ছোট টুকরোয় ভেঙে দ্রুত মাটিতে মিশে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *