New Year Eve Party on 31st December Not Allowed in Mumbai

মুম্বাইতে আগামী ৩১শে ডিসেম্বর রাতের অনুষ্ঠান বন্ধ

ভারতবর্ষ

বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণ উপলক্ষে আগামী ৩১শে ডিসেম্বর রাতে, মুম্বইয়ে কোনও পার্টি-জমায়েতের (New Year Eve Party) অনুষ্ঠান করা যাবে না।

নিজস্ব সংবাদদাতা: একরাশ উদ্বেগ আর অস্বস্তি নিয়ে ২০২০ সাল বিদায় নিচ্ছে। পরিস্থিতি এখনো সংকট মুক্ত নয়। আর তার সাথে থাকছে নতুন বছরের আগমন। বছরের এই যাওয়া আর আসার মাঝে মানুষ মেতে ওঠে নানা আনন্দের উৎসবে। কিন্তু এই বছর মুম্বাই সেই স্বাদ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণ উপলক্ষে আগামী ৩১শে ডিসেম্বর রাতে, মুম্বইয়ে কোনও পার্টি-জমায়েতের (New Year Eve Party) অনুষ্ঠান করা যাবে না। এই বিষয়ে এক গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশিকা জারি করেছে মুম্বই পুলিশ। একই সাথে বলা হয়েছে, রাত্রিকালীন কার্ফু শিথিল করা হবে না। ফলে গোটা মুম্বাই শহরে জারি থাকবে ১৪৪ ধারা।

New Year Eve Party on 31st December Not Allowed in Mumbai
New Year Eve Party on 31st December Not Allowed in Mumbai

আবেগ আর আনন্দের এই বর্ষবরণ আলাদা মাত্রা পায় এই বাণিজ্য ও বিনোদনের শহরে। দেশে করোনা সংক্রমণের তালিকাতে প্রথম থেকেই শীর্ষে মহারাষ্ট্র। দৈনিক সংক্রমণে মহারাষ্ট্র এখনও প্রথম পাঁচের মধ্যে আছে। ফলে সতর্কতা মানা খুব প্রয়োজন। মুম্বই পুলিশের ডিসি এস চৈতন্য জানান, ‘‘প্রতি বছর বর্ষবরণের রাতে মুম্বইয়ে বিশাল ধরণের জমায়েত হয়। কিন্তু এ বার করোনা পরিস্থিতির জন্য এটি করা সম্ভব নয়। সেই কারণে বাড়ির ছাদ, বার-রেস্তরাঁ, সমুদ্র সৈকত বা অন্য কোথাও পার্টি-জমায়েতের অনুমতি দেবে না মুম্বাই প্রশাসন।’’

মুম্বইয়ে রাত ১১টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত নৈশ-কার্ফু জারি আছে। ১৪৪ ধারা জারি থাকায় চার জনের বেশি রাস্তায় বার হতে পারবেন না।

[ আরও পড়ুন ] সেনাপ্রধান মুকুন্দ নারাভানে তিন দিনের সফরে দক্ষিণ কোরিয়াতে

তবে রাত ১১টার পরে গাড়ি নিয়ে যাতায়াত করা যাবে। তবে সেই গাড়িতে চার জনের বেশি যাত্রী থাকা যাবে না। আসলে গত ২৫শে নভেম্বর এক কোভিড নির্দেশিকা জারি হয়েছিল। এটি আগামী ৩১শে জানুয়ারি পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। এইমুহূর্তে গোটা দেশে করোনা সংক্রমণ ধীরে ধীরে কমছে। কিন্তু বিশ্বের পরিস্থিতি ও নতুন ধরণের করোনা স্ট্রেনের কথা ভেবে কোনও শিথিলতা দেখানো যাবে না। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামদাস আটাওয়ালে বলেন, ‘‘আমি কয়েক মাস আগে ‘গো করোনা, করোনা গো’ স্লোগান দিয়েছিলাম। এখন নতুন স্ট্রেনের জন্য ‘নো করোনা, করোনা নো’ স্লোগান দিচ্ছি।’ সকলকে সচেতন থাকার অনুরোধ জানানো হচ্ছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *