SAI Approves Jawaharlal Nehru Stadium Can be Used As Quarantine Center

Jawaharlal Nehru Stadium – হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার

ভারতবর্ষ

জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামকে (Jawaharlal Nehru Stadium) কেজরিওয়াল সরকারের হাতে তুলে দিল স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (SAI)। মারণ …

নয়াদিল্লি: দেশে করোনার প্রকোপ প্রতিদিন বাড়ছে। ২১দিনের লকডাউনের মধ্যেও থামছে না সংক্রামণের সংখ্যা। দেশে আলাদা করে করোনা মোকাবিলার হাসপাতালের সংখ্যাও কম। সেই কারণেই স্টেডিয়ামকে বেছে নেওয়া হচ্ছে। এই মুহূর্তে মহারাষ্ট্র ও কেরলের পর তৃতীয়স্থানে আছে রাজধানী নয়াদিল্লি। গোটা দেশের সঙ্গে চরম স্বাস্থ্য সংকটে রাজধানীর চিকিৎসা ব্যবস্থা। সেই কারণেই, জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামকে (Jawaharlal Nehru Stadium) কেজরিওয়াল সরকারের হাতে তুলে দিল স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (SAI)। মারণ ভাইরাসে আক্রান্তদের কোয়ারেন্টাইন কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে আন্তর্জাতিক এই স্টেডিয়ামকে।

SAI Approves Jawaharlal Nehru Stadium Can be Used As Quarantine Center
SAI Approves Jawaharlal Nehru Stadium Can be Used As Quarantine Center

যদিও এর আগে পশ্চিমবঙ্গে ও আসামে স্টেডিয়ামকে ব্যবহার করা হয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে মোকাবিলায় একের পর এক উদ্যোগ নিয়ে চলেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যাপাধ্যায়। হাওড়ার ডুমুরজলা স্টেডিয়ামে কম সময়ের মধ্যে ১৫০ শয্যার কোয়ারেন্টাই সেন্টার তৈরি করা হয়েছে। তবে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, প্রয়োজনে ইডেন গার্ডেন্সকেও কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে কাজে লাগাতে পারে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এরপাশে আসাম সরকার আপদকালীন পরিস্থিতির জন্য তৈরি। গুয়াহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথলেটিক স্টেডিয়ামে এক হাজার শয্যা বিশিষ্ট কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পরিণত করেছে আসাম সরকার।

তেলেঙ্গানায় বেতন কমছে ৭৫% – মহারাষ্ট্রে কমছে ৬০% – আরও জানতে ক্লিক করুন …

দিল্লিতে সাই জানিয়েছে, “নেহরু স্টেডিয়ামটি করোনা মোকাবিলায় ব্যবহার করতে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিল সরকার। আমরা আগেই আমাদের সোনপত সেন্টারটি তাদের ব্যবহারের জন্য দিয়েছি। পাটিয়ালার সাই প্রশিক্ষণ সেন্টারটিও দেওয়া হয়েছে। সেখানে ১২০ শয্যা বিশিষ্ট কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হয়েছে। অ্যাথলিটরা যেখানে থাকেন, এই প্রশিক্ষণ সেন্টারটি তার বাইরে অবস্থিত।” পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণতহবিলে ৭৬ লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছেন সাইয়ের কর্মীরা। গ্রুপ এ বি ও সি-র কর্মীরা যথাক্রমে তিন, দুই ও একদিনের বেতন করোনা মোকাবিলায় দান করছেন।

করোনার নাম নথিভুক্ত অনলাইনে – আরও জানতে ক্লিক করুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *