Sahi Imam of Jama Masjid Syed Ahmed Bukhari on CAA

Shahi Imam: নাগরিকত্ব নিয়ে আতঙ্কমুক্ত হতে বললেন

ভারতবর্ষ

অবশেষে দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম (Shahi Imam) সৈয়দ আহমেদ বুখারি সামনে এলেন। প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখে তিনি …

অবশেষে দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম (Shahi Imam) সৈয়দ আহমেদ বুখারি সামনে এলেন। প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখে তিনি, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ যাতে নিয়ন্ত্রণের গণ্ডি না ছাড়ায় তার জন্য আবেদন জানান। নাগরিকত্ব সংশোধনি বিল সংসদে আইনে প্ররিণত হতেই দেশজুড়ে এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ ও অসমে এর প্রভাব পড়েছে সবথেকে বেশি। দিল্লি ও পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষোভের আগুনে জ্বলেছে বাস-ট্রেন। তিনি মনে করিয়ে দেল যে নাগরিকত্ব আইন ভারতীয় মুসলিমদের জীবনে কোনও রকম প্রভাব ফেলবে না। এই আইন নিয়ে সবাইকে ভয় না পেতে অনুরোধ করেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন এই সংশোধনীর ফলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের লাখ লাখ কোটি কোটি অমুসলিমরা উপকৃত হবেন। ৩১শে ডিসেম্বর, ২০১৪ সালের হিসেবে সরকারি হিসেবে ভারতে মোট ২,৮৯,৩৯৪ জন রাষ্ট্রহীন ব্যক্তি রয়েছেন। ২০১৬ সালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক লোকসভায় এই তথ্য দিয়েছে। এর মধ্যে বাংলাদেশের মানুষ সবচেয়ে বেশি, ১,০৩,৮১৭। এর পর শ্রীলঙ্কা ১,০২,৪৬৭। এর পর তিব্বত (৫৮,১৫৫), মায়ানমার (১২,৪৩৪), পাকিস্তান (৮৭৯৯) এবং আফগানিস্তান (৩,৪৬৯)। রাষ্ট্রহীন এই নাগরিকদের হিসেবে ধর্মভেদ করা হয়নি। ২০১৪ সালের ৩১শে ডিসেম্বরের পর যাঁরা নিয়মিত পথে ভারতে এসেছেন তাঁরা আবেদন করবেন। যদি তাঁরা অবৈধ অভিবাসী বলে চিহ্নিত হন, তাহলে তাঁরা স্বাভাবিক নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবেন না, তা সে যে ধর্মেরই হোন না কেন।

বুখারি স্পষ্ট ভাবে জানান, গণতান্ত্রিক উপায়ে কোনও কিছুর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার অধিকার সংবিধান আমাদের দিয়েছে। এই প্রতিবাদ করা থেকে আমাদের কেউ থামাতে পারবে না। কিন্তু দেখতে হবে সেই প্রতিবাদ যেন সশৃঙ্খল হয়। আমাদের আবেগ, ক্ষোভ যেন নিয়ন্ত্রণে থাকে। নাগরিকত্ব আইন ভারতীয় মুসলিমদের ওপরে কোনও প্রভাব ফেলবে না। বরং তার প্রভাব পড়বে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফাগানিস্থান থেকে আসা উদ্বাস্তুদের। পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে আসা অনুপ্রবেশকারীরা এই আইনের কারণে ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবে না। ভারতীয় মুসলিমরা যেমন আছেন, তেমন থাকবেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *