Remembering Jim Corbett on His 144th Birthday

আজ শিকারী ও পশুপ্রেমী জিম করবেটের জন্মদিন

ইতিহাস লাইফস্টাইল

তিনি (Jim Corbett) ১৯০৭ সালের দিকে মানুষ খেকো চম্পাবতের বাঘিনী শিকার করেন। এটাই তার কর্মজীবনের প্রথম বাঘ শিকার।

নিজস্ব প্রতিবেদন: পৃথিবীতে এমন অনেক ব্যক্তি আছেন যারা নিজের যোগ্যতা, মেধা, সাহস, বীরত্ব ও দেশপ্রেমের জন্য অমর হয়ে আছেন। এদের মধ্যে ভারতের দুঃসাহসী শিকারী জিম করবেটের (Jim Corbett) নাম উল্লেখযোগ্য।

Remembering Jim Corbett on His 144th Birthday
Remembering Jim Corbett on His 144th Birthday

জিম করবেট ১৮৭৫ সালের ২৫শে জুলাই ভারতের নৈনিতালে জন্মগ্রহণ করেন। তার পুরো নাম এডওয়ার্ড জেমস করবেট। তার বাবা ক্রিস্টোফার গার্নি, জাতিতে আইরিশ ছিলেন এবং তিনি নৈনিতালে পোস্টমাস্টারের চাকরি করতেন। জিম করবেটের মায়ের নাম মেরী জেন এবং বড় ভাইয়ের নাম টমাস বা টম। নৈনিতালের আয়ারপাটায় ‘গার্নি হাউস’ ভবনে তার শৈশব কাটে। ১৯০৭ থেকে ১৯৩৮ দীর্ঘ তিন দশক ধরে রাতের পর রাত হিংস্র শ্বাপদের সন্ধানে কেটেছে জিম করবেটের।

তিনি ১৯০৭ সালের দিকে মানুষ খেকো চম্পাবতের বাঘিনী শিকার করেন। এটাই তার কর্মজীবনের প্রথম বাঘ শিকার। ১৯৪৬ সালে ‘ম্যান ইটার্স অফ কুমায়ুন’ (Man-Eaters of Kumaon) নামে শিকার কাহিনি নিয়ে লেখা তার প্রথম বই। বইটি সারাবিশ্বে শিকার কাহিনি হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে উঠে। তিনি একে একে লেখেন ‘ম্যান ইটিং লেপার্ড অব রুদ্রপ্রয়াগ’ (১৯৪৮) ‘মাই ইন্ডিয়া’ (১৯৫২), ‘জঙ্গল লোর’ (১৯৫৩), দ্য টেম্পল টাইগার অ্যান্ড মোর ম্যান ইটার্স অব কুমায়ন’ (১৯৫৪)-এর মতো অসাধারন কাহিনী।বাঘকে ‘নিষ্ঠুর ও রক্তপিয়াসী’ বলতে ঘোরতর আপত্তি তাঁর।

জিমের কথায়, ‘‘বাঘ উদারহৃদয় ভদ্রলোক। সীমাহীন তার সাহস। যে দিন বাঘকে বিলোপ করে দেওয়া হবে, যদি বাঘের সপক্ষে জনমত গড়ে না ওঠে বাঘ লোপ পাবেই, তা হলে ভারতের শ্রেষ্ঠতম প্রাণীর বিলোপে ভারত দরিদ্রতরই হবে।’’

তিনি শিকারে কখনো ব্যর্থ হননি। শেষ মানুষখেকো বাঘিনী শিকার করেন ১৯৩৮ সালে। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণেও তার অবদান সুবিশাল। ভারতের সব বন, এমন কি সংরক্ষিত বন যেখানে প্রবেশের অনুমতি নিতে হয়, সেখানেও তার ছিল অবাধ প্রবেশাধিকার। আসলে এই শিকারী বনে প্রবেশ করলে বনের তো কোন ক্ষতি হবে না বরং বন ও আশপাশের মানুষদের উপকারই হবে। ১৯৪৭ সালের ২১শে নভেম্বর গার্নি হাউস বাড়ির বাগানে একটি গাছের চারা রোপণ করে ও জঙ্গলে বন্দুকগুলি ‘সমাধিস্থ’ করে চিরদিনের মতো ভারত ছাড়লেন জিম।

১৯৪৭ সালে জিম করবেট আফ্রিকার কেনিয়ায় গিয়ে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আন্দোলনে শরিক হন। কেনিয়াতে তিনি ‘ট্রি টপস’নামে একটি বই লেখেন। এই মহান শিকারী ১৯৫৫ সালের ১৯শে এপ্রিল পরলোক গমন করেন। তাঁর নামানুসারে ভারতের করবেট ন্যাশনাল পার্কের (Jim Corbett National Park) নামকরণ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *