This Summer Get Rid of Prickly Heat

প্রচন্ড গরমে ঘামাচি থেকে রেহাই ।

লাইফস্টাইল

This Summer Get Rid of Prickly Heat At Your Home

দেহের ঘর্মগ্রন্থিগুলোর মুখ যখন ময়লা ও ব্যাকটেরিয়ার জন্য আটকে যায়, তখন ঘাম বের হতে না পেরে সেখানে আটকে গিয়ে ঘামাচি (Prickly Heat) তৈরী হয়।

রাজ্য জুড়ে চলছে তাপপ্রবাহ যার জেরে শরীরে যেমন ক্লান্তিও আসে তেমনি তৈরি হয় ঘাম যা থেকে হয় ঘামাচি (Prickly Heat) কিন্তু একটু সাবধানতা অবলম্বন করলেই নিরাময়ের উপায় ও পাওয়া যায়। দেহের ঘর্মগ্রন্থিগুলোর মুখ যখন ময়লা ও ব্যাকটেরিয়ার জন্য আটকে যায়, তখন ঘাম বের হতে না পেরে সেখানে আটকে গিয়ে ঘামাচি তৈরী হয়।

সাধারণত পিঠ, বাহু, পেট এসব স্থানে ঘামাচি দেখা দিলেও অনেকের মুখে, কপালেও অতিরিক্ত গরমে ঘামাচি দেখা দেয়। দেহের ঘর্ম গ্রন্থিগুলোর মুখ যখন ময়লা ও ব্যাকটেরিয়ার জন্য আটকে যায়, তখন ঘাম বের হতে না পেরে সেখানে আটকে গিয়ে ঘামাচি তৈরী হয়। অনেকের মুখে, কপালেও অতিরিক্ত গরমে ঘামাচি দেখা দেয়। এর সাথে যুক্ত হয় চুলকানি ও নানা রকম সংক্রমণ।

This Summer Get Rid of Prickly Heat At Your Home
This Summer Get Rid of Prickly Heat At Your Home

ঠান্ডা চিকিত্‍সা:- ঘামাচি আক্রান্ত এলাকায় ঠান্ডা শীতল পরশ খুব কাজে আসে উদ্দিপ্ততা এবং চুলকানি দূর করতে। কিছু বরফ টুকরা নিয়ে ঘামাচি আক্রান্ত এলাকায় ৫-১০ মিনিট ধরে লাগাতে পারেন। দৈনিক ৪-৬ ঘন্টা পরপর এটি করতে পারেন। এইভাবে দুই থেকে তিন দিন করুন। ঘামাচি সমস্যা দূর হয়ে যাবে এবং পুনরায় দেহে ছড়াবে না। অন্যভাবে আপনি একটি পরিষ্কার কাপড় ঠান্ডা জলে ভিজিয়ে আক্রান্ত এলাকায় ৫-১০ মিনিট ধরে লাগাতে পারেন, এইভাবে দিনে ৩-৪ বার করুন এক সপ্তাহ পর্যন্ত। তাছাড়া আপনি ঠান্ডা জলে স্নান করে নিতে পারেন ঘামাচির তীব্র যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য।

নিম পাতা :- নিমপাতা ভালোভাবে বেটে নিন। খানিকটা পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন এবং আক্রান্ত জায়গায় লাগান। সম্পূর্ণ না শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। নিমপাতার এন্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ঘামাচির জীবাণু মেরে ফেলে দ্রুত আপনাকে ঘামাচি থেকে মুক্তি দেবে। কিছুক্ষণ পর তুলে ফেলুন। ভালো ফলাফল পাবার জন্যে দিনে ৪-৫ বার এটি করতে পারেন।

বেসন:- ছোলার বেসন এবং জল দিয়ে একটা গাঢ় পেস্ট বানান । এরপর এই পেস্ট ঘামাচির ওপর লাগান । ২০-২৫ মিনিট রাখার পর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন । এই ঘরোয়া পদ্ধোতির সাহায্যে খুব সহজেই ঘামাচির জ্বালা এবং চুলকানির হাত থেকে রেহাই পাবেন।

কর্পুর:- কর্পুরের টুকরো নিয়ে তার পাউডার বানান । এইবার এই পাউডারে কয়েক ফোঁটা নিম তেল মেশান । নিম পাতাও বেটে নিয়ে মেশাতে পারেন । এই পেস্ট এবার ঘামাচির ওপর লাগান । দ্রুত আরাম পাবেন ।

চন্দন এবং ধনে পাতা:- চন্দন পাউডার বা চন্দন বাটাতে ধনে পাতা বেটে মেশাতে হবে । এই পেস্ট এবার ঘামাচির ওপর লাগান । শুকিয়ে যাওয়া অবধি লাগিয়ে রাখতে হবে । শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন । ধনে পাতায় অ্যান্টি সেপ্টিক গুন আছে । আর চন্দন জ্বালা আর চুলকানি কমাতে সাহায্য করে ।
এছাড়া অভিজ্ঞ চিকিৎসকের সাহায্য নেওয়া একান্তই প্রয়োজন|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *