tonsils

এই এই আবহাওয়া পাল্টানোর সময়ে টনসিলের ব্যথাকে গুরুত্ব দিন – প্রতিকার করুন – Tonsils Infection Remedy

লাইফস্টাইল

টনসিলে সংক্রামণের ফলে ব্যথা হলে বাজারে নানা রকম ওষুধ, সিরাপ ছাড়া, ঘরোয়া উপায়েও এই সমস্যা দূর করা সম্ভব।

শীতের শেষ অধ্যায়| বসন্ত জাগ্রত দ্বারে| কিন্তু ঠান্ডা এখনো স্বপরিবারে লেপ-কাঁথা নিয়ে পালায় নি| সর্দি-কাশি-জ্বরের সাথে আমার আপনার শরীরে সমস্যা দিতে প্রস্তুত টনসিলের ব্যাথা| যেকোনো বয়সের মানুষকে চরম ব্যথায় ভোগাবে এই টনসিল|

Tonsils in reality
Tonsils in reality

দেখা যায় অনেক সময় গলায় খুব ব্যথা করে। তখন একটু ঢোক গিলতে গেলেও খুব কষ্ট হয়। এই ব্যথা সাধারণত টনসিলে সংক্রমণের কারণে হয়ে থাকে।আমাদের জিভের পিছনে গলার দেয়ালের দু’পাশে গোলাকার পিণ্ডের মতো যে জিনিসটি দেখা যায়, সেটাই হল টনসিল।

এটি দেখতে সাধারণ দৃষ্টিতে মাংসপিণ্ডের মতো মনে হলেও এটি মূলত এক ধরণের টিস্যু বা কোষ। এই টনসিল মুখ, গলা, নাক কিংবা সাইনাস হয়ে রোগজীবাণু অন্ত্রে বা পেটে ঢুকতে বাধা দিয়ে থাকে। আবার বিপদের ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে টনসিলের ব্যথা হয়ে থাকে। সর্দি-কাশির জন্য দায়ী ভাইরাসগুলিই আসলে টনসিলের এই কষ্টকর সংক্রামণের জন্যে দায়ী। টনসিলে সংক্রামণের ফলে ব্যথা হলে বাজারে নানা রকম ওষুধ, সিরাপ ছাড়া, ঘরোয়া উপায়েও এই সমস্যা দূর করা সম্ভব।

tonsils pain home remedy 19
Tonsils pain home remedy

১) আদা দিয়ে চা: দেড় কাপ সাধারণ জলে এক চামচ আদার কুচি আর আন্দাজ মতো চা পাতা দিয়ে ১০ মিনিট ভালোভাবে ফুটিয়ে নিন। দিনে অন্তত ৩-৪ বার এই একটু গরম পানীয়টি পান করুন। আদার অ্যান্টি ব্যকটেরিয়াল আর অ্যান্টি ইনফালামেন্টরী উপাদান সংক্রামণ ছাড়াতে বাধা দেয়। সাথে সাথে গলার ব্যথাও কমে যাবে।

২) নুন মিশ্রিত জল: আপনার গলা ব্যথা শুরু হলে যে সহজ কাজটি কম-বেশি আমরা প্রায় সকলেই করে তা হল, সামান্য উষ্ণ জলে নুন দিয়ে গার্গেল করা। এটি কষ্টের টনসিলে সংক্রামণ রোধ করে গলার ব্যথা কমাতে খুবই কাজ করে । আবার উষ্ণ নুন জল দিয়ে গার্গেল করলে গলায় ব্যাকটেরিয়ার সংক্রামণের আশঙ্কাও দূর করে দেয়।

৩) টাটকা লেবুর রস: এক গ্লাস সামান্য উষ্ণ জলে ১ চামচ লেবুর রস, ১ চামচ মধু, আধা চামচ নুন ভাল করে চামচ দিয়ে মিশিয়ে নিন। এই সুস্বাধু মিশ্রণটি যত দিন গলা ব্যথা ভাল না হয়, তত দিন পর্যন্ত খেতে থাকুন। টনসিলের সম্যসা দূর করবে এটি।

৪) মধুর সাথে সবুজ চা : এক কাপ গরম জলে আধা চামচ সবুজ চা পাতা আর এক চামচ মধু দিয়ে ভালোভাবে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। তারপর সেটিকে ধীরে ধীরে চুমুক দিয়ে পান করুন। সবুজ চায়ে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে, যা সব রকম ক্ষতিকর জীবাণুকে ধ্বংস করে। দিনে ৩ থেকে ৪ কাপ এই মধু-চা খেতে পারলে টনসিলের থেকে উপকার পাবেন।

৫) হলুদ দুধ: এক কাপ গরম দুধে এক চিমটি হলুদ মিশিয়ে নিন। ছাগলের দুধ বা গরুর দুধে হলুদ মিশিয়ে সামান্য গরম করে খেলেও উপকার পাওয়া যায়। হলুদ অ্যান্টি ইনফ্লামেন্টরী, অ্যান্টি ব্যায়টিক এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ একটি উপাদান, যা গলা ব্যথা দূর করে টনসিলের আক্রমণ থেকে শরীরকে বাঁচাতে সাহায্য করে।

নিয়ম মেনে এগুলি প্রয়োগ করলেই, সহজ ভাবে টনসিলের ব্যাথা থেকে রেহাই পাবেন|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *