India Pakistan Cricket Series

পাকিস্তান সার্জিক্যাল হানায় ভারতকে ক্রিকেট সিরিজ খেলতে বাধ্য করবে – India Pakistan Cricket Series

আন্তর্জাতিক খেলা

চুক্তি অনুযায়ী ২০১৫ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে ৬টি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলার কথা ছিল ভারত-পাকিস্তানের

খেলা আর সুস্থ সম্পর্কের বার্তাবাহক হতে পারছে না| জঙ্গি আর সন্ত্রাসের কবল থেকে আলাদা হতে খেলাই একমাত্র অবলম্বন হাওয়া উচিত, যে কোনো বিপদজনক দেশের ক্ষেত্রে| পাকিস্তানকে সেই ভালো পথ বেছে নেওয়া উচিত, কারণ ইমরান খান একজন ক্রিকেটের আরএখন সেদেশের প্রধান| কিন্তু প্রত্যেকটি দেশকেই ক্রিকেট খেলতে হলে, বিশ্ব নিয়ামক সংস্থার বিধি মানতে হয়| কিন্তু পাকিস্তান ব্যতিক্রমের আওতায় পড়ে, তাই অকারণ হুংকার ছাড়ে|

BCCI VS PCB War on Cricket Series
BCCI VS PCB War on Cricket Series

যেহেতু ক্রিকেটীয় আইনি পথে লড়েও কোনও লাভ হল না, তাই স্বভাব মেনে এবার অন্য রাস্তা নিল পাকিস্তান। ২০১৮ সালে দুই দেশের ক্রিকেট সংস্থার মধ্যে একটা গুরুত্বপূর্ণ মউ চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তি অনুযায়ী, ২০১৫ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে ৬টি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলার কথা ছিল ভারত-পাকিস্তানের। কিন্তু দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক খুব তলানিতে ঠেকায় আপাতত সিরিজের সম্ভাবনা একেবারেই অসম্ভব। পাকিস্তান বারবার সিরিজের জন্য খুব চাপ দিলেও বিসিসিআই একেবারেই রাজি নয়। যার জন্য আইসিসির দ্বারস্থ হয়েছিল পিসিবি। তবে সেপথেও লাভ হয়নি।

উল্টে বিসিসিআইকে ক্ষতিপূরণ দিতে হয়েছে আইন না জানা পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে। তাই এবার আর আইনি লড়াইয়ে না গিয়ে অন্য পন্থা নিয়েছে তারা।
বিভিন্ন উপায়ে ভারতের উপর সিরিজ খেলার চাপ দিয়েছে পাকিস্তান। ভারতীয় সরকারের তরফে সাফ জানানো হয়েছে, নিরাপত্তা ছাড়া আরও অন্য কারণে এই মুহূর্তে পাকিস্তানের সঙ্গে কোনও ক্রিকেট সিরিজ খেলবেন না বিরাট কোহলিরা।

এবার তাই পাকিস্তান বলছে, ভারতকে ক্রিকেট সিরিজ খেলতে বাধ্য করবে তারা। তারা মনে করছেন, তারা যদি নিজেদের সেরা করে তুলতে পারি তা হলে ভারত আমাদের সঙ্গে খেলতে বাধ্য হবে। তাই পাক দল আপাতত বিশ্ব ক্রিকেটের এক নম্বর দল হয়ে ওঠার চেষ্টা করছি। আমরা সেরা হয়ে উঠলে বিসিসিআই হয়তো নিজেরাই আমাদের সঙ্গে সিরিজ খেলার প্রস্তাব দেবে।

মউ চুক্তি লঙ্ঘনের জন্য ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বিরুদ্ধে মামলা করেছিল পিসিবি। একটা সময় মামলায় জয়ের গন্ধও পেতে শুরু করেছিল তারা। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ব্যাপারটা পুরো তাদের বিপরীতে যায়। ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল-এর (আইসিসি) রেজ্যুলেশন কমিটি পিসিবিকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেয়।

এর পর শুনানির খরচ আদায় করার জন্যও আইসিসির কাছে পাল্টা মামলা করে বিসিসিআই। সেই মামলাও জেতে বারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ফলে সব দিক থেকেই বড়সড় ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে। তাই আর মামলার রাস্তায় যেতে চায় না। বরং সৌহার্দ্য বজায় রেখেই ক্রিকেট সিরিজের কথা ভাবছে পাকিস্তান| এই সার্জিক্যাল হানা, বোমা ফেলে বলকেই আপন করবে| বিশ্বকাপের পরে ভাবা যাবে ভারত পাকিস্তানে যাবে কিনা|

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *